বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ সকল জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আবারও তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক পদে রইলেন সেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সেই আনন্দে সম্প্রীতি ডায়মন্ড হারবার ২নং ব্লক সরিষা তৃণমূল যুব কমিটির পক্ষ থেকে মিষ্টি মুখ করে সবুজ আবির খেলায় মেতে উঠলেন। এক ব্যক্তি এক পদ নীতির সপক্ষে প্রকাশ্যেই সওয়াল করেছিলেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ। এ নিয়ে তুমুল জলঘোলা হয়, এরপর কানাঘুষো শোনা যায় যে সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের পদ ছাড়তে চলেছেন অভিষেক। কিন্তু সম্প্রীতি তৃণমূলের জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠক শেষে সব জল্পনার অবসান ঘটলো, বহাল রইলেন অভিষেকই। কিছু দিনের ব্যবধানে তাঁর পুরনো পদেই ফিরলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। দলের নতুন ওয়ার্কিং কমিটিতেও সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক পদের দায়িত্ব তাঁকেই দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাৎপর্যপূর্ণ হল, খুব স্বাভাবিক নিয়মে আর পাঁচ জনের মতো যখন অভিষেকের পদ চলে যায়, তখন দলের মধ্যে ও রাজনৈতিক মহলে এক শ্রেণির মধ্যে যুদ্ধজয়ের আনন্দ ছিল। কেউ কেউ এও দাবি করতে শুরু করেছিলেন যে অভিষেককে চাপে রাখতে দলে একাধিক সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক নিয়োগ করতে পারেন দিদি। অভিষেকের আলাদা করে বিশেষ মর্যাদা যাতে না থাকে, তা নিশ্চিত করতেই সেই ব্যবস্থার কথা ভাবা হচ্ছে।

কিন্তু সকল জল্পনার অবসান ঘটিয়ে আবারও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুধু সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক পদের দায়িত্ব দেওয়া হল শুধু তাই নয়, জাতীয় স্তরে সাধারণ সম্পাদকের পদ আর কাউকে দেওয়া হল না। অর্থাৎ ওই পদে অদ্বিতীয় থাকলেন অভিষেক।