এই আট বছরে যা হয়েছে, সিপিএমের আমলেও এই রকম সংগঠিত সন্ত্রাস দেখিনি – প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়

0
147

বিশেষ সংবাদদাতা, কলকাতা :- বাংলায় তৃণমূলের প্রধান প্রতিপক্ষ এখন বিজেপি। আবার সারা দেশে যাঁরা এখন নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহদের বিরুদ্ধে গলার সুর চড়িয়ে কথা বলেন, তাঁদের মধ্যে এগিয়ে রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সেই মমতারই স্নেহের কানন তথা কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় প্রথম দিন বিজেপি রাজ্য দফতরে পা রেখে জানিয়ে দিলেন, “বিজেপি যদি দিদিকে সাহায্য না করত, অটলবিহারী বাজপেয়ী লালকৃষ্ণ আডবাণীরা যদি মমতাদির হাত ধরে না তুলতেন, তাহলে তিনি তৃণমূল করতেই পারতেন না।”

শোভনের গেরুয়া শিবিরে যোগদানের পর্ব সারা হয়ে গিয়েছিল স্বাধীনতা দিবসের আগের দিন। মঙ্গলবার বিকেলে রাজ্য বিজেপি-র পক্ষ থেকে সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়েছিল শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্য। সে সব পালা মেটার পর রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ দু’পাশে শোভন-বৈশাখীকে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন। সেখানেই শোভনবাবু বলেন, “৩৪ বছর আলিমুদ্দিন স্ট্রিট পুলিশ প্রশাসনকে ব্যবহার করে অনেক অত্যাচার করেছে। কিন্তু এই আট বছরে যা হয়েছে, সিপিএমের আমলেও এই রকম সংগঠিত সন্ত্রাস দেখিনি।”

এখানেই থামেননি শোভনবাবু। নতুন দলের নেতা হিসেবে দিলীপ ঘোষকে মেনে নিয়েছেন, এবং দিলীপবাবু যেমন বলবেন তেমনই তিনি চলবেন, তা-ও এ দিন স্পষ্ট করে দেন বেহালা পূর্বের বিধায়ক। বলেন, “নত মস্তকে বলছি, জীবন চলে গেলে যাবে। দিলীপ ঘোষ যে ভাবে বলবেন, সে ভাবেই চলব। এখন অর্জুনের পাখির চোখ দেখার মতো লক্ষ্য একটাই। বাংলাকে আবার মুক্ত করতে হবে।”

তৃণমূল নেতারা অবশ্য বলছেন, শোভন এমন কথা আরও বলুন। বেশি বেশি করে বলুন। বৈশাখীকে পাশে নিয়ে বলুন। যত এরকম বলবেন, বিশ্বাসঘাতকের মুখ কেমন দেখতে হয় বাংলার মানুষ চিনে যাবে। লোকে বুঝতে পারবে, দুধ কলা দিয়ে দিদি কাদের বড় করেছেন। এঁরা দল থেকে বেরিয়ে যাওয়াই মঙ্গল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × four =