অলোক আচার্য, নিউ বারাকপুরঃ- করোনা অতিমারি আবহেও একমাত্র ছেলের জন্মদিনে পালনে পিছপা হল না পরিবার। কর্মসূত্রে ছেলে বউমা বিদেশে থাকলেও তার বাবা মা জন্মদিন পালন করতে ভোলেন নি। একমাত্র ছেলের জন্মদিনে বৌদ্ধিষ্ট হোম অনাথ আবাসিকদের পেট ভরে দুপুরের খাবার বিরিয়ানি দিলেন এবং শিক্ষাণ সামগ্রী তুলে দিলেন ছেলের বাবা মা।

সোমবার দুপুরে মধ্যমগ্রাম সাহাড়া ব্যানার্জী পাড়ায় বৌদ্ধিষ্ট হোমের অনাথ বাচ্চাদের দুপুরের খাবার বিরিয়ানি দিলেন নিউ বারাকপুর পুরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের রামকৃষ্ণ রোডের বাসিন্দা অধ্যাপক স্বপন কুমার সিনহা ও হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক ডাঃ অনিতা সিনহা পরিবার। তাদের একমাত্র ছেলে সোহম সিনহার ৩৪ তম জন্মদিন উপলক্ষে। সোহম কর্মসূত্রে সিঙ্গাপুর আমেরিকান কোম্পানির সিনিয়র প্রোডাক্ট হেড হিসাবে কর্মরত। সোহমের বাবা পেশায় ঈগনুর অধ্যাপক বিষয় রুরাল ডেভেলপমেন্ট। মা হোমিও চিকিৎসক ও লেখক।

সোহমের বাবা ড: স্বপন কুমার সিনহা জানান, ছেলের জন্মদিনে কোন অনারম্ভর জাকজমক অনুষ্ঠান বা কেক কেটে দিনটি উদযাপন করা হয় না। বাড়িতে কোন অনুষ্ঠান নয়। অসহায় গরীব মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে পরিবার একমাত্র ছেলের এই শুভ জন্মদিন পালন করে থাকে বরাবর।২০১৭ সালে ছেলের বিয়ে হয় নিবেদিতার সাথে।কর্মসূত্রে আগে জাপানের টোকিও তে ছিল বর্তমানে পদোন্নতি তে সিঙ্গাপুরে কর্মরত। মে মাসে ১০ তারিখ ছেলের ৩৪ তম জন্মদিন উপলক্ষে সোমবার মধ্যমগ্রাম ব্যানার্জি পাড়া বৌদ্ধিষ্ট হোমের ৫০ জন আবাসিক এবং ১০ জন বৌদ্ধ ভিক্ষু কে দুপুরের বিরিয়ানি খাবার তুলে দেওয়া হয় এদিন এবং শিক্ষণ সামগ্রী ও বিলি করা হয়।

গত বছর লকডাউনে নিউ বারাকপুর পুরসভার ৯নং ওয়ার্ডে ও বিলকান্দা প্রত্যন্ত অঞ্চলে ৮০ জনকে খাদ্যসামগ্রী বন্টন করা হয়েছিল। তার আগের বছর সল্টলেক প্রনব কন্যা আশ্রমে আবাসিক দের খাবার বিতরণ করা হয়েছিল। পরিবারের খুশি এই সামাজিক কর্মকান্ডে ছেলের জন্মদিন পালন করতে পেরে। একটা আলাদা আনন্দ উপভোগ করেন পরিবার। ছেলেও বউমা খুশি। অসহায় অনাথ বাচ্চাদের মুখে একটু হাসি ফোঁটাতে পেরে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen − 4 =