সংবাদদাতা, বসিরহাট :- বসিরহাট মহকুমার থানার হাসনাবাদ থানার তকিপুর চারা বটতলা চলতি মাসের ১৩ ই জুন বৃহস্পতিবার রাত আটটা নাগাদ বছর ৩৬ সরস্বতী দাস নিজের বাড়ি থেকে অন্ধকারে শৌচাগারে যাচ্ছিল সেই সময় দুষ্কৃতীরা এসে গুলি করে কুপিয়ে খুন করে।

পুলিশ এই খুনের মোটিভ দেখে ধন্দে পড়েছিল ।জেলা ও রাজ্য প্রশাসন যথেষ্ট নড়েচড়ে বসেছিল পুলিশ খুঁজছিল সরস্বতী দাসের মোবাইল ফোন ও আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করা জিনিসপত্র কিন্তু মোবাইল ফোন উদ্ধার হল খুন করা আগ্নেয়াস্ত্র এখনো উদ্ধার করতে পারিনা।
হাসনাবাদ থানার পুলিশ কিন্তু ঘটনার তদন্ত সুরু করে পরে এই খুনের নয়া মোড় ।
কোন রাজনৈতিক খুননা। প্রশাসন সূত্রে খবর সরস্বতী দাসের ছেলে বছর উনিশের সুমন দাস কে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করতেই উঠে আসলো চাঞ্চল্যকর তথ্য মা খুনের অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে ।
সুমন সঙ্গে অন্য কোনো দুষ্কৃতী ছিল কিনা সেটাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ কেন এই নিশংস খুন পুলিশের কাছে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।
ধৃত সুমনকে রবিবার বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হবে ধৃত সুমনকে পুলিশ আদালতের কাছে পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার আর্জি জানিয়েছে।