পল মৈত্র, দক্ষিণ দিনাজপুর :- বুধবার সকালে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর শহরের বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন জ্যোতি বসু রোডে এতদিন পর নিজস্ব ও স্থায়ী দলীয় কার্যালয় উদ্বোধন করলেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি তথা নাট্য ব্যক্তিত্ব অর্পিতা ঘোষ। এদিন প্রায় সহস্র অধীক দলীয় কর্মী সমর্থক ও নেতা নেতৃত্বদের উপস্থিতিতে দলীয় কার্যালয়টির উদ্বোধন করেন অর্পিতা ঘোষ।

উপস্থিত ছিলেন নব্য নির্বাচিত গঙ্গারামপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান অমলেন্দু সরকার, দক্ষিন দিনাজপুর জেলার আইএনটিটিইউসির জেলা সভাপতি মজিরুদ্দিন মন্ডল, জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অতনু রায়, গঙ্গারামপুরের বিধায়ক গৌতম দাস, ললিতা টিগ্গা, পৌরসভার কাউন্সিলার রাকেশ পন্ডিত, জয়ন্ত দাস, অশোক বর্ধন সহ অন্যান্য কাউন্সিলার ও কর্মী সমর্থকরা। বরাবরই গঙ্গারামপুর শহর তথা জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের দূর্গ ছিল প্রাক্তন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্রের। এবং বারবার জেলায় দলের কোন্দলের চিত্র ফুটে উঠেছে। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল খারাপ হওয়ায় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জী তাকে কলকাতায় ঢেকে পাঠান। এরপরই চলতে থাকা জল্পনা সত্যি করে বিপ্লব মিত্র বিজেপিতে যোগদান করেন। এবং তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়। পাশাপাশি জেলা সভাপতি করা হয় অর্পিতা ঘোষকে। শুধু তাই নই তাকে দলের নানান পদ দেওয়ার পর অর্পিতা ঘোষ কর্মী সমর্থকদের সাথে নিয়ে হাতে হাত মিলিয়ে রাজনীতির ময়দানে নেমেছেন। তথাকথিত ভাবে পদ পাওয়ার পরই অর্পিতা ঘোষ নানান কাজ করে মাস্টার স্ট্রোক দিচ্ছেন। তিনি জানান, এতদিন গঙ্গারামপুরে দলীয় কার্যালয় স্থায়ী না থাকায় আমরা কয়েকজন মিলে সিদ্ধান্ত নিয়ে এই কার্যালয়ের উদ্বোধন করলাম, যেখানে জেলার সাধারন মানুষ থেকে শুরু করে দলীয় কর্মী সমর্থকরা আসবেন এবং তাদের সমস্যার কথা বলবেন। আমরা যথাসাধ্য ভাবে তা সমাধানের চেষ্টা করবো। নতুন দলীয় কার্যালয়টি উদ্বোধন হওয়ার পর শহরের সকল স্তরের মানুষ সহ দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের বাড়তি অক্সিজেন জোগালো তা বলাই বাহুল্য। অর্পিতা ঘোষের নানান কর্মসূচী ও উন্নয়নশীল কাজের তারিফ করে সমাজের শুভ বুদ্ধি সম্পন্ন মানুষ ও রাজনৈতিক সমালোচকদের মনে কতটা ইন্ধন জোগাবে তা এখন দেখার। এদিন দলীয় কার্যালয়ের স্থানটি মেলা প্রাঙ্গণের ন্যায় হয়ে উঠেছিল, সকলের উপস্থিতি ছিল উল্ল্যেখযোগ্য।