অলোক আচার্য, সোদপুরঃ- উত্তর ২৪ পরগণার সোদপুরে একই পরিবারের তিনজনের রহস্যমৃত্যু। সোদপুর ষ্টেশন রোডের কাছে বসাক বাগানে এই ঘটনা ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে। দরজা ভেঙে তিনটি দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জানা গেছে, স্বামী ও স্ত্রী এবং তাদের ১৭ বছরের পুত্রসন্তানের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, মা ও ছেলের মুখ থেকে গ্যাজলা বেরোচ্ছিল। তাদের বিষক্রিয়া মৃত্যু হয়েছে বলে অনুমান পুলিশের।

অন্যদিকে গৃহকর্তার দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ঘটনাস্থলে সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। বন্ধু কে লেখা চিঠিতে গৃহকর্তা বলেছেন, তাদের আর ভালো লাগছে না। তাদের মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। গৃহকর্তা লিখেছেন, একজন কয়েক হাজার টাকা পেতেন তার কাছ থেকে, সেই টাকা শোধ করে দিতে বন্ধুতে বলেছেন।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গৃহকর্তার কাপড়ের ব্যবসা ছিল। দেনার দায়ে মানসিক অবসাদে সপরিবারে তাঁরা আত্মঘাতী হয়েছেন কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। গৃহকর্তার নাম সমীর কুমার গুহ(৫৮), তার স্ত্রী ঝুমা গুহ এবং ছেলের নাম বাবাই গুহ(২৩) বলে জানান স্থানীয় প্রতি বেশীরা।

প্রতিবেশী রা জানান, ভদ্রলোক পেশায় গার্মেন্টস ব্যবসায়ী। বড়বাজার থেকে জামাকাপড় কিনে বিভিন্ন দোকানে বাড়িতে ফেরি করত। গত বছর লকডাউনের সময় থেকেই আর্থিক অনটন ছিল। চার বছর ধরে ভাড়া রয়েছে সোদপুর বসাক বাগানে। দেনার দায়ে জড়িয়ে পরেছিলেন। দেনার দায় সহ্য করতে না পেরে ছেলে কে মেরে স্বামী -স্ত্রী দুজনেই আত্মহত্যা করেছেন।