বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- পশ্চিমবঙ্গ গনতন্ত্র মানবাধিকার (সি পি ডি আর) ইন্ডিয়া ও রাজনৈতিক একটি সংগঠন। কয়েক দিন আগে সিপিডিআর কেন্দ্রীয় কমিটির একটা রদবদল করা হয়। সেখানে আগে এই দাইত্বে ছিলেন নুর নবী শেখ, এখন সেই কেন্দ্রীয় কমিটির দায়িত্ব দেওয়া হয় শাজাহান গাজী কে। এই নিয়ে সিপিডিআর পক্ষ থেকে দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলার নেতৃত্বদের উপস্থিতিতে ডায়মন্ড হারবার কমিটির উদ্যোগে এদিন এক ক্ষোভ প্রকাশ করে এক বিক্ষোভ কর্মসূচি বাসুল ডাঙ্গা অফিসে অনুষ্ঠিত হয়।

উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন সিপিডিআর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর নবী শেখ, পশ্চিম বঙ্গের মহিলা সম্পাদিকা মেনোকা মন্ডল, পশ্চিম বঙ্গের মহিলা সভাপতি সুস্মিতা দাস, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সহ সম্পাদক রাম চন্দ্র নস্কর, প্রাণ বল্লোভ সহ আরো অন্যান্য ব্যক্তিত্ববর্গ।

কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর নবী শেখ বলেন, আমাদের উদ্দেশ্য সর্বসাধারণ মানুষ সমস্যার মধ্যে পড়লে এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন হলে, তাদের কে যেকোনো মূল্যেও সিপিডিআর এর পক্ষ থেকে আমরা তাদের কে সমাধান করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। এই কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আমি প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ বছর এই কাজে নিযুক্ত ছিলাম,এই কিছুদিন আগে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি দয়াময় বিশ্বাস তিনি নিজের স্বার্থের লোভে মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে আমাকে বহিস্কার করেছে। আমি এর সঠিক বিচার চেয়ে পুলিশ প্রশাসন থেকে শুরু করে সকল জায়গায় আমি দ্বারস্থ হবো বলে এমনটা জানান তিনি।

রাম চন্দ্র নস্কর বলেন, এই কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর নবী শেখের নেতৃত্বে সর্ব সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে ভালই কাজ হয়ে আসছিল, এখন হটাৎ করে কেনো জানিনা সিপিডির এর কেন্দ্রীয় সভাপতি দয়াময় বিশ্বাস এখন মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে নুর নবী শেখ কে বহিস্কার করেছে, তিনি বলেন আমি চাই আবারও কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক নুর নবী শেখ কে ওই পদে ফিরিয়ে দিতে।

সুস্মিতা দাস তিনিও বলেন যোগ্য ব্যাক্তিকে সরিয়ে দিয়ে অযোগ্য ব্যক্তি কে ওই জায়গায় স্থান দিয়েছে, আমরা কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাজাহান গাজী কে মানবনা।

মহিলা সম্পাদিকা মেনকা মন্ডল তিনিও বলেন, কেন্দ্রীয় সভাপতি দয়াময় বিশ্বাস তিনি নিজের স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে নুর নবী শেখ নানান ভাবে সাহেস্থা করার চেষ্টা করেছে। এবং এই কেন্দ্রীয় কমিটিদের পক্ষ থেকে জানান যতদিন না পর্যন্ত নুর নবী শেখ কে আবারও কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পদে ফিরিয়ে আনবে তত দিন আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবে।