নিজস্ব সংবাদদাতা, ব্যারাকপুর :- ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে সকাল থেকেই উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন জায়গায় অবরোধে সামিল হয়েছেন বিজেপির কর্মী-সর্মথকরা। কোথাও রেল অবরোধ, আবার কোথাও রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করে আন্দোলনে নেমেছেন অবরোধকারীরা। বারাসত-ব‍্যারাকপুর রোডের নীলগঞ্জ মোড়েও দেখা গেল সেই দৃশ্য। এখানেও সকাল থেকে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ শুরু করেছেন বিজেপির কর্মী-সর্মথকরা।

রীতিমত, ব‍্যারিকেড দিয়ে রাস্তা আটকে বেঞ্চ পেতে অবরোধ করা হয়েছে সেখানে। কোনও গাড়ি নীলগঞ্জ মোড়ের রাস্তায় ঢুকতে ও বেরতে দেওয়া হচ্ছে না। পাশাপাশি, চলছে অবরোধকারীদের দাদাগিরিও। তাও আবার পুলিশের সামনেই। এক ম‍্যাটাডোর গাড়ির চালক নীলগঞ্জ রোডের দিকে ঢুকতে গেলে তাকে বাধা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। রীতিমত শাসানি দিয়ে তাকে বারাসত-ব‍্যারাকপুর রোডের দিকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। সামনে পুলিশ থাকলেও তাঁদের ভূমিকা ছিল কার্যত নীরব দর্শকের। আজ সকাল ৯ টা থেকে এই অবরোধ শুরু হলেও অবরোধ হটাতে কিংবা বিজেপির দাদাগিরি রুখতে পুলিশ কোনও উদ্যোগী হয়নি বলে অভিযোগ করেছে সাধারন মানুষ।ফলে, তাঁদের চরম সমস‍্যার মধ্যে পড়তে হয়েছে। নীলগঞ্জ মোড়ে সেই অবরোধ এখনও চলছে বলে খবর। যদিও, দাদাগিরির অভিযোগ মানতে রাজি হননি অবরোধকারীরা। তাঁদের বক্তব্য,”অর্জুন সিংয়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে তাঁরা রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করেছেন ঠিকই, কিন্তু সেখানে গায়ের জোর দেখানো হয়নি।তাই হয়েছে স্বতঃস্ফূর্তভাবে। এদিকে, গতকালের ঘটনার প্রতিবাদে আমডাঙার রাজবেড়িয়া মোড়ে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে অবরোধ করে বিজেপির কর্মী-সর্মথকরা। এরফলে, গুরুত্বপূর্ণ ওই রোডে যানচলাচল স্তব্ধ হয়ে যায়।

পরে, পুলিশ এসে অবরোধকারীদের হটিয়ে দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। প্রসঙ্গত,গতকাল পার্টি অফিস দখলকে কেন্দ্র করে তৃনমূল ও বিজেপি সংঘর্ষে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে ব‍্যারাকপুরের শ‍্যামনগর ও জগদ্দল। দফায় দফায় অবরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ, বোমাবাজিতে দিনভর পরিস্থিতি উত্তপ্ত থাকে।অভিযোগ, পুলিশের লাঠির আঘাতে মাথা ফাটে ব‍্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের। ঘটনার প্রতিবাদে আজ ব‍্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলে ১২ ঘন্টার বনধের ডাক দেয় গেরুয়া শিবির। পাশাপাশি,রাজ‍্যের সমস্ত পুলিশ সুপারের অফিস ঘেরাওয়ের ডাক‌ও দেওয়া হয়েছে।