অলোক আচার্য, উত্তর ২৪ পরগণাঃ- বুলবুল, ফণি, উম-পুনের পর ইয়াস। পূর্ণিমার ভরা কোটাল আর ইয়াসের তান্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছে সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা। এলাকার নদী বাঁধ দুর্বল হয়ে পড়েছে। উত্তর ২৪ পরগণা বসিরহাট মহকুমার সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সন্দেশখালি ও হিঙ্গলগঞ্জ। সন্দেশখালি প্রবল জলোচ্ছ্বাসে ভেসে গিয়েছে প্রচুর বাড়িঘর। নিরাশ্রয় হয়ে বাড়ি ঘর ছেড়ে অসহায় দুর্গত মানুষজন আশ্রয় নিয়েছেন ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রে।

বাধ ভেঙে গোটা এলাকায় জল ঢুকে বহু মানুষ আবার আশ্রয় নিয়েছেন আয়লা সেন্টার গুলিতে। সবথেকে বেশি অসুবিধায় পড়েছে বানভাসি মহিলারা। এলাকায় বাধ ভেঙে গোটা এলাকা জল ঢুকে কার্যত বিপর্যস্ত এলাকার মানুষ। মাটির প্রলেপ কিংবা বস্তা ফেলে তা তখনকার মতো সারানো হলেও জলের তোড়ে আলগা হচ্ছে মাটি।রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে দুর্বল জায়গা গুলিতে চলছে কংক্রিট বাঁধ নির্মাণের কাজ। বেশ কয়েকদিন ধরেই সমস্ত উপকূলবর্তী এলাকা গুলিতে ত্রাণ বিলি করছে বহু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। খবর পেয়েই সন্দেশখালি ২ ব্লকের বেড় মজুর ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের রামপুর হালদার ধেরী গায়েন পাড়া, ঝুপখালি গ্রামের পাইকপাড়া এবং রামপুর ফরেস্ট অফিসের ভাঙা তুষখালি দুর্গত মানুষের হাতে সাধ্যমতো ত্রাণ সামগ্রী পৌছে দিল উত্তর ২৪ পরগণা জেলার নিউ বারাকপুরের খড়ের মাঠ সংহতি সংঘের সদস্যরা।

শনিবার সকালে দুর্গতদের বাচ্চা থেকে বড় সকলের জন্য শুকনো খাবার, চাল, ডাল, আলু সোয়াবিন, মুড়ি, নানাবিধ সামগ্রী, পানীয় জল বাচ্চাদের দুধের প্যাকেট বিস্কুট মোমবাতি মাস্ক স্যানিটাইজার সাবান ধূপকাঠি দেশলাই পাতিলেবু ছোট ছেলে মেয়েদের জামাকাপড় ও গ্রামের মহিলাদের জন্য পরনে শাড়ি ও তুলে দেওয়া হয় এদিন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে নিরন্ন মানুষেরা ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করেন। উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান, উপপ্রধান পঞ্চায়েত সদস্যগণ। বসিরহাট মহকুমার ব্লক ২ এর সহ কৃষি অধিকর্তা করনের দায়িত্ব প্রাপ্ত অফিস স্টাফ এমডি হাসিম রেজা, রাজু মন্ডল, হাসানুর গাজি, আব্দুল করিম, দেবাশিস ঘোষ বিশিষ্ট জনেরা।

নিউ বারাকপুর খড়ের মাঠ সংহতি সংঘের সভাপতি পঙ্কজ হাওলাদার জানান, ইয়াস বিধ্বস্ত সন্দেশখালি ব্লক ২ এর প্রত্যন্ত তিনটি গ্রামের প্রায় চার শতাধিক অসহায় মানুষে হাতে খাদ্যসামগ্রী শুকনো খাবার সহ পানীয় জল ও বাচ্চাদের জামাকাপড় ও মহিলাদের পরনে শাড়ি তুলে দেওয়া হয় এদিন। নিউ বারাকপুর পুরসভার মুখ্য প্রশাসক তৃপ্তি মজুমদারের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এবং সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সুখেন মজুমদারের নির্দেশে এই মহতি মানবিক উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সংগঠনে সদস্য দে আন্তরিকতা ও সহযোগিতায় এই ত্রাণ শিবির সার্থক রূপ পায়।