বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- বাংলা কাব্যে অগ্রগামী ভূমিকা রাখার পাশাপাশি প্রগতিশীল প্রণোদনার জন্য সর্বাধিক পরিচিত কাজী নজরুল ইসলাম। ২৪শে মে, ১৮৯৯ সালে জন্ম বর্ধমানের চুরুলিয়া গ্রামে, মারা যান ২৯ শে আগস্ট ১৯৭৬ সালে বাংলাদেশের ঢাকা শহরে।যেমন লেখাতে বিদ্রোহী, তেমনই কাজেই বিদ্রোহী, কবির স্মৃতির উদ্দেশ্যে সঙ্গীত ও কবিতার মধ্য দিয়ে ৪৫তম মৃত্যুবার্ষিকী যথাযথ মর্যাদায় পালিত হলো ডায়মন্ড হারবার প্রেস কর্ণারে।

প্রেস কর্ণারের সম্পাদক শাকিল আহমেদ জানান, বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, ছোটবেলায় তাঁর নাম ছিল দুখু মিয়া, দারিদ্রতার মধ্যে বেড়ে ওঠা এতেই নাম হয় দুখু মিয়া। চায়ের দোকানে কাজ করতো, কাজ সমাপ্ত করে অবসর সময়ে বিভিন্ন পালাগানে তিনি অভিনয় করেছেন।কাজী নজরুল ইসলামের রচনাবলী বিষের বাঁশি, কান্ডারী হুশিয়ার, সর্বহারা, সাম্যবাদী,সহ একাধিক গ্রন্থ রচনা করেন। কবি সাহিত্যিক ও গীতিকার হিসেবে তিনি সুপরিচিত ছিলেন। ইংরেজ শাসন কালে তাঁর লেখনীর জন্য তিনি কয়েক বার ইংরেজদের রোষের মুখে পড়তে হয়েছিল জেলও খাটতে হয়েছিল তাকে, এবং প্রেস কর্ণারের পক্ষ থেকে বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের মৃত্যু বার্ষিকী যথাযত ভাবে আমরা পালন করলাম।

উপস্থিত ছিলেন ডায়মন্ড হারবার প্রেস কর্ণারের সম্পাদক ও প্রবীণ সাংবাদিক শাকিল আহমেদ, প্রেস কর্ণারের সভাপতি ও বিশিষ্ঠ প্রবীণ সাংবাদিক কিংশুক ভট্টাচার্য, সহ সভাপতি নকিমুদ্দিন গাজী সহ প্রেস কর্ণারের সকল সাংবাদিক এবং বিভিন্ন এলাকার কবি ও সঙ্গীত শিল্পীরা।