নিউ বারাকপুর :- বাড়ির সামনে রাস্তার ধারে গজাল পেরেক তৈরির কারখানা বন্ধের প্রতিবাদে মহিলাকে বেধড়ক মারধর করে প্রান নাশের হুমকি দিলেন। অস্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করে। দোকানের মালিক তার স্ত্রী বড় মেয়ে পাতানো ভাই এবং দোকানের কর্মচারি প্রতিবাদী গৃহবধূ তার মেয়েদের গালিগালাজ করে বলে অভিযোগ প্রতিবাদী মহিলার। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার সকালে। প্রতিবাদী গৃহবধূ সুষমা মৃধার এমনটাই অভিযোগ। ছয় জন দুষ্কৃতীকারীর বিরুদ্ধে নিউ বারাকপুর থানায় ঘটনাটি বিস্তৃত লিখিত জানিয়ে এফ আই আর করা হয়েছে। সুষমা মৃধার অভিযোগ শহরপুর বিদ্যাসাগর লেনের জনৈক রাজু দাস বেআইনিভাবে লোহা তৈরির কারখানা বানিয়ে বড় আকারে ব্যবসা ফেদেঁছিল। এর আড়ালে ছিল মদ,গাঁজা,জুয়ার ব্যবসা ও মহিলাদের আড্ডা। কিছুদিন আগে রাস্তার ধারে গার্ডওয়াল করার দরুন গুমটি ঘরটি ভেঙে দিয়েছিল রাজ্য সরকারের PWD দপ্তর। প্রশাসনের চোখেঁ ধুলো দিয়ে পুনরায় বেআইনিভাবে দোকানঘরটিকে পুননির্মান করতে গেলে প্রতিবাদ করলে সমাজবিরোধীদের সঙ্গে নিয়ে হামলা চালায় রাজু দাস সহ তার স্ত্রী বড় মেয়ে পাতানো ভাই ও দোকানের কর্মচারি। রড বাশঁ হাতুড়ি দিয়ে প্রকাশ্য হামলা চালায়। প্রান নাশের হুমকি দেয় রাজু দাস। বাড়ির সামনে চলে প্রকাশ্য মদ গাঁজা জুয়ার ব্যবসা। সুষমা মৃধার এমনটাই অভিযোগ। নিউ বারাকপুর থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন প্রতিবাদী গৃহবধূ। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সরজমিনে তদন্তে নেমেছে। মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে। সুষমা দেবীর পরিবার মানসিকভাবে ও শারীরিকভাবে নিগৃহীত হবার পর নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন।