লরির চাকায় পিষ্ট প্রৌঢ়! উত্তেজনা, ভাঙচুর

0

অলোক আচার্য, বিশরপাড়া :- মাটি বোঝাই লরির চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রৌঢ়ের অস্বাভাবিক মৃত্যু কে ঘিরে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। উত্তেজিত জনতা লরিটিকে ভাঙচুর করে। ঘটনাটি ঘটেছে নিমতা থানার উত্তর দমদম পুরসভার ৩নং ওয়ার্ডের বিশরপাড়া সপ্তগ্রাম সাহা পাড়ায় স্হানীয় বিবেকানন্দ অগ্রগামী সংঘের সন্নিকটে। ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার বিকেল ৪-১০মিনিটে পান্নালাল দাস চায়ের দোকান থেকে চা খেয়ে বাড়ি ফিরছিল। ঠিক ঐ সময়ে বাকড়া থেকে মাটি বোঝাই একটি লরি(নং WB25B4496)ফিঙ্গার দিকে যাচ্ছিল। ক্লাবের সন্নিকটে পাশে বেশ কিছু মাটির স্তুপ দীর্ঘদিন ধরে পরে রয়েছে। মৃগী রোগী পান্নালাল দাসকে লরি ধাক্কা মারলে তিনি ঽতবিম্ব হয়ে পড়ে যান রাস্তায়। লরির পিছনের চাকা পান্নাবাবুর মাথা পিষিয়ে দিয়ে চলে যায়। ঘটনাস্থলে পান্নাবাবুর মৃত্যু হয়। এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। লরির চালক ও হেল্পার পলাতক। দুর্ঘটনার একঘন্টা পরে নিমতা থানার পুলিশ আসে মৃতদেহ নিতে। উত্তেজিত জনতা বাধা দেয় মৃতদেহ না নেবার জন্য। উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। বেশ কিছুক্ষন রাস্তা অবরোধ করে জনগণ। পুলিশ এলাকার জনগনকে আশ্বস্ত করে বলেন আপনারা শান্ত হোন। আমরা লরির মালিককে আপনাদের সাথে বসাব ক্ষতিপূরণ এর জন্য বলে জানালেন পান্নাবাবুর সেজভাই দেবাশিষ দাস। এলাকায় উত্তেজিত জনতা লরিটিকে ভাঙচুর করে বিক্ষোভ দেখায়। জানা গিয়েছে পান্নাবাবুরা তিন ভাই এক বোন বিবাহিত। বড়ভাই পান্নালাল দাস (৫৫)। মা আছেন বাবা নেই। অসহায় পরিবারে একটি ভাড়াটিয়া। পুলিশ মৃতদেহটি কামারহাটি সাগর দও মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে দুর্ঘটনার তদন্ত হবে। পান্নাবাবুর পিতা(রাধেশ্যাম দাস) র মৃত্যুর পর থেকে শারীরিকভাবে অসুস্থ মৃগী রোগে আক্রান্ত। পান্নাবাবুর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে পড়ে। অসহায় পরিবার প্রশাসনের দিকে তাকিয়ে সুবিচারের আশায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

twelve − two =