বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- সারা রাজ্যের পাশাপাশি ডায়মন্ড হারবার ২ নম্বর ব্লকের সরিষা ২৪৬ মোড় তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ে অত্যন্ত মর্যাদার সাথে বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১ তম জন্ম দিবস পালিত হ’ল। ডায়মন্ড হারবার ২নং ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে সোমবার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছবিতে মাল‍্যদান করে এই দিনটি পালিত হয়। মাল‍্যদান করেন ডায়মন্ড হারবার ২নং ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অরুময় গায়েন, সরিষা অঞ্চলের অবজারভার তথা যুব নেতা শামীম আহমেদ মোল্লা, যুব নেতা মাহবুবার রহমান গায়েন, মইদুল ইসলাম, নীতিশ মোদক, কালীদাস প্রামানিক, সেলিম সহ তৃণমূল কংগ্রেসের ছাত্র যুব নেতৃত্বরা ও অন্যান্য কর্মীরা।

অরুময় গায়েন বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করতে পাশাপাশি বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম ও কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মূর্তিতে মাল্যদান করা হয়। তিনি আরও বলেন, ২৫ বৈশাখ কথাটা শুনলেই আমরা বিশেষ করে বাঙালি মন উদ্বেলিত হয়ে ওঠে।নানাভাবে আমরা কবিকে স্মরণ করি, শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করি। আজ আমি সুরহীন ভাবেই কবির গানের একটা বিশেষ অংশ তুলে ধরলাম।

রবীন্দ্র সাহিত্যের সঙ্গে ‘পথ’ অঙ্গঙ্গীভাবে যুক্ত। ‘পথ’ কবির কাছে যেমন গতির প্রতীক, তেমনি ‘পথ’ হলো তাঁর জীবনদেবতার আবাসস্থল, তাই পথেই কবির বাস।

যুব নেতা শামীম আহমেদ মোল্লা কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রসঙ্গে বলেন, রবীন্দ্রনাথের গানে বার বার করে ফিরে এসেছে এই ‘পথ’। কখনো পরম ব্রহ্মের সন্ধানে তিনি পথে চলেছেন, কখনো বা পথের শেষে দাঁড়িয়ে তিনি নিজের দেবালয়কে খুঁজেছেন। “পথের প্রান্তে আমার তীর্থ নয়, পথের দু’ধারে আছে মোর দেবালয়।” কবি সাধক, কবি গায়ক। আজন্ম তিনি পথের মধ্যে থেকে সুরস্রষ্টার খোঁজ করে গেছেন,”তাঁর বিখ্যাত গান, “ভেঙে মোর ঘরের চাবি নিয়ে যাবি কে আমারে,,।এই গানেই কবি বলেছেন, “সমুখে ওই হেরি পথ,তোমার কি রথ পৌঁছাবে না মোর দুয়ারে!” এই আঁকুতি কবি সারা জীবন বহন করে গেছেন।তাই তিনি সজল চোখে গেয়ে উঠেছেন- “তোমায় কিছু দেব বলে চায় যে আমার মন, নাই বা তোমার থাকলো প্রয়োজন। এবং তার পাশাপাশি একটি ছোট সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়।