নিজস্ব সংবাদদাতা :- মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ অমান্য করে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে তৃণমূলের বিক্ষোভ। প্রায় ২৫ মিনিট ধরে চলে তৃণমূলের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ। ফলে সমস্যায় পড়েন বহু পথচলতি মানুষ। শুক্রবার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মূলত এনআরসি সহ একাধিক দাবি নিয়ে তৃণমূল প্রথমে মিছিল করে পরে দত্তপুকুর থানার নতুন রাস্তার মোড়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়।

সেখানে রাস্তার উপরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। বিরোধীদের দাবি, তারা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করলে বা রাস্তা, ট্রেন অবরোধ করলে বা বন্ধ ডাকলে শাসন দল বিরোধিতা করে পুলিশ প্রশাসনকে দিয়ে তাদের আন্দোলন স্তব্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। বিরোধীদের নানান মামলায় জড়িয়ে দেয়। মুখ্যমন্ত্রী নিজেও বন্ধ, অবরোধ সংস্কৃতি বন্ধ করার জন্য দাবি করেছেন। অথচ এদিন তার দলের নেতা কর্মীরা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল। এবার মুখ্যমন্ত্রী কি পদক্ষেপ নেন সেটাই দেখার। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী দিল্লি গিয়ে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ সঙ্গে বৈঠক করলেন। আর রাজ্যে তাদের কুশপুত্তলিকাই দাহ করছেন তার দলের নেতা কর্মীরা। এ এক বিচিত্র রাজনৈতিক খেলা খেলছে তৃণমূল।