সুজয় মন্ডল, বসিরহাট :- বসিরহাট মহকুমার দু নম্বর ব্লকের খোলাপোতা গ্রাম পঞ্চায়েতে বুলবুলের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়ালো খোলাপোতা গ্রাম পঞ্চায়েত । গতকাল বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বসিরহাটে প্রশাসনিক বৈঠক করার পর কড়া নির্দেশ দিয়েছিলেন ।প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কড়া বার্তা দিয়েছিলেন যাতে ত্রাণ নিয়ে কোনো রাজনীতি না হয়। মুখ্যমন্ত্রীর এই নির্দেশের পর বসিরহাট ২ নম্বর ব্লকের তৃণমূল ব্লক সভাপতি সরোজ বন্দ্যোপাধ্যায় ও পঞ্চায়েত প্রধান অপরেশ মুখার্জী উদ্যোগে ত্রাণ দেওয়ার কাজ শুরু হয় । গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে শতাধিক ক্ষতিগ্রস্ত ও দুর্গতদের জন্য শুকনো খাবার গম, চাল, বাচ্চাদের জন্য গুঁড়োদুধ , ত্রিপল,ডেঙ্গু প্রতিরোধের জন্য মশারি ইত্যাদি দেওয়া হয় । সেইসঙ্গে কিছু বস্ত্র ও দান করা হয় ।পাশাপাশি বুলবুলের তাণ্ডবের পর যে জলবায়ু জনিত রোগের প্রকোপ দেখা যায়। যেমন- ডায়রিয়া, কলেরা ইত্যাদি। এই সমস্ত রোগ প্রতিরোধ করতে আগে থেকেই বিশুদ্ধ পানীয় জলের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইতিমধ্যে উদ্যোগ নিয়েছে বসিরহাট দু’নম্বর ব্লক প্রশাসন। পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রামে মেডিকেল টিমের ব্যবস্থা করেছেন। এছাড়াও অসুখ বিসুখে যাতে কোনো রকম মহামারী আকার ধারণ করতে না পারে, তার জন্য আগাম সর্তকতা মূলক ব্যবস্থা নিয়েছে ব্লক প্রশাসন। ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে ডেঙ্গু প্রতিরোধের জন্য ফগ মেশিনের মধ্য দিয়ে মশা মারার কীটনাশক দেওয়া হচ্ছে নোংরা আবর্জনাময় জায়গায় এবং বাড়ির চারপাশে। পাশাপাশি স্থানীয় মানুষকে ও সচেতন করা হচ্ছে ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে । এ বিষয়ে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সরোজ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়ার পর পরই আমরা আমাদের ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে সুষ্ঠুভাবে ত্রাণ বিলির কাজ শুরু করে দিয়েছি।সবাই যাতে ত্রাণ পায় সেজন্য আমরা সচেষ্ট আছি। পাশাপাশি আমরা মানুষের সুষ্ঠু পরিষেবা দিতে বিশুদ্ধ পানীয় জল ও ঔষধপত্র সাপ্লাইয়ের ব্যবস্থা করছি ।এমনকি গ্রামে গ্রামে মেডিকেল টিম পাঠানোর চেষ্টা করছি। আমরা সব সময় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ ও দুর্গত মানুষের পাশে আছি।