অলোক আচার্য, নববারাকপুরঃ- করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সচেতনতা এবং ভ্যাকসিনের জন্য সরকার লাগাতার প্রচার চালিয়ে চলছে। সচেতনতার ঘাটতির জেরে বাংলায় কোভিড পরিস্থিতি আশংকাজনক পর্যায়ে পৌঁছেছে। বিধিনিষেধ কার্যকর হলেও মানুষের মুখে নেই মাস্ক। সকলের মাস্ক পরা এবং স্যানিটাইজ বাধ্যতামূলক। মাস্ক বিহীন ভাবে বহু মানুষ যত্রতত্র ঘোরাঘুরি করছে। মাস্ক পড়ুন ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। নিজে সুস্থ থাকুন ও অপরকে সুস্থ রাখুন। মাস্ক নিয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে এবার পথে নামল নববারাকপুরের সেবায়ন সামাজিক সংগঠন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিশরপাড়া রেল স্টেশন চত্বরে বাজার দোকানে ১ ও ২ নং প্লাটফর্মে নিত্য যাত্রী পথচলতি সাধারণ মানুষের মধ্যে মাস্ক বিহীন মানুষদের হাতে মাস্ক তুলে দেওয়ার পাশাপাশি পথ চলতি মানুষদের স্যানিটাইজ বিলি করা হয় এদিন সন্ধ্যায়। নববারাকপুর পুরসভার ২০ নং ওয়ার্ডের লাগোয়া বিশরপাড়া স্টেশন বাজার হয়ে প্লাটফর্মে নিত্যযাত্রী সহ সাধারণ মানুষের মধ্যে মাস্ক তুলে দেওয়া হয় এবং হাত স্যানিটাইজ করান সেবায়নের সদস্যরা। তার পাশাপাশি মাস্ক পড়ার জন্য এবং হাত স্যানিটাইজ বা সাবান জল দিয়ে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা করার কথা সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য বার্তা তুলে ধরেন সেবায়নের সদস্যরা।

সেবায়নের সভাপতি সমাজসেবী সুমন দে বলেন, কোভিড পরিস্থিতিতে সংক্রমণ প্রতিরোধে মানুষের জীবন বাঁচাতে সকলের মাস্ক পরা এবং স্যানিটাইজ বাধ্যতামূলক। নিজেরা সচেতন না হলে অপরকে সচেতন করা যাবে না। কোভিডের উর্ধ্বমুখী গ্রাফ আটকাতে সকলকেই মাস্ক পরতে এই সচেতনতা অভিযান কর্মসূচি। নববারাকপুর পুরাতন বাজারের পর বিশরপাড়া স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় সকল ক্রেতা বিক্রেতা সহ রেল স্টেশন চত্বরে প্লাটফর্ম জুড়ে পাঁচশো মানুষের মধ্যে মাস্ক ও স্যানিটাইজ বিলি করা হয়েছে। হাত স্যানিটাইজ করে সচেতন করা হয় এদিন।

যাদের মুখে মাস্ক নেই সেই সব মাস্ক বিহীন মানুষদের হাতে মাক্স তুলে দেওয়া হয় ।নিজের পরিবারকে বাচঁতে এখনই মাস্ক পরুন এই সচেতনতার বার্তা তুলে ধরা হয়।উপস্থিত ছিলেন পুরসভার ২০ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অরিন্দম আচার্য সহ সেবায়ন সংস্থার সদস্যরা ।