বিশেষ সংবাদদাতা :- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, মাদ্রাসা মানেই জঙ্গি শিবির তা কখনোই বলা যায় না। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে যে মন্তব্য করা হয়েছে তা বিভ্রান্তিকর, অসত্য এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জি কিষণ রেড্ডি বলেছিলেন, পশ্চিমবঙ্গের একাংশ মাদরাসা জঙ্গি কার্যকলাপের আঁতুড়ঘর হয়ে উঠেছে। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির দুই সাংসদের এক প্রশ্নের জবাবে ওই মন্তব্য করেন মোদীর মন্ত্রিসভার ওই সদস্য।

শুক্রবার বিধানসভায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, এ বিষয়ে সংসদে প্রশ্ন উঠেছিল। গত ২৮ জুন তার জবাব কেন্দ্র আমাদের থেকে জানতে চেয়েছিল। আমরা জানিয়েছি, প্রশ্নই ওঠে না। কিন্তু আমাদের জবাব না দিয়ে কেন্দ্র নিজেদের মতো করে জবাব দিয়েছে।

মমতার আরও বলেন, এই ধরনের ঘটনা প্রায়ই হচ্ছে। আমাদের বক্তব্য জানিয়ে তারা নিজেদের মতো করে যা ইচ্ছে বলছে। এটা ঠিক না। যদিও রাজ্য সরকার কেন্দ্রকে ঠিক কী জবাব দিয়েছিল তা বলেননি মমতা।

তবে রাজ্য সরকার কেন্দ্রকে ঠিক কী জবাব দিয়েছিল তা এ দিন বিধানসভায় জানাতে চাননি মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, যারা সমাজ বিরোধী, তাদের কোনও ধর্মের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা ঠিক নয়। মাদরাসা মানেই সন্ত্রাসী হবে তা বলা যায় না।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা আরও বলেন, ধর্মের ভিত্তিতে একজন আরেকজনকে সন্ত্রাসবাদী বলছে, এটা এভাবে বলা যায় না। যদি কোথাও কোনও ঘটনা ঘটে তাহলে কেন্দ্র আমাদের জানাক। আইন সবার জন্য এক। কেউ দোষ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। কিন্তু ধর্মের নামে ভেদাভেদ করা ঠিক না।