বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- ৩১শে মার্চ থেকে বিকাশ ভবনে শিক্ষাদপ্তরে উচ্চপদে দায়িত্ব পাচ্ছেন‌ ডায়মন্ড হারবার মহকুমা শাসক সুকান্ত সাহা। ডায়মন্ড হারবার মহকুমা শাসকের দায়িত্বে এসেছিলেন ২০১৯ সালে ১২ জুলাই। প্রায় ২১ মাস ডাঃ হাঃ-র সাতটা ব্লকের মানুষের জন্য যা করেছেন, হুগলী নদীতে ডাঃ হাঃ উপকূলে ১১৭ নম্বর জাতীয় সড়কের প্রায় ১৬০ মিটার রাস্তা নদীগর্ভে ধ্বসে গেলে যুদ্ধকালীন প্রস্তুতিতে কাজ সম্পন্ন করে। ডাঃ হাঃ ও কাকদ্বীপের ২০-২৫ লক্ষ মানুষের যাতায়াতের ব্যবস্থা করেন। আম্ফান ও ইয়াস বিপর্যয়ে উদ্ধারকারীদের উদ্বুদ্ধ করেন। করোনার সময়ে দুঃস্থ ও আর্তের পাশে দাঁড়িয়ে খাদ্যসামগ্রী, ওষুধ ও শিশুখাদ্য পৌঁছে দেন। সেফ জোন ও টিকাকরণে ডাঃহাঃ জেলায় শীর্ষস্থান করে নিয়েছে। লৌহসেতু ও নদী তীরবর্তী শিশুপার্কও মাঠের সৌন্দর্যায়ন করেন। এবং সাংবাদিকদের জন্য দঃ ২৪ পঃ জেলা পরিষদ কার্যালয়ে একটি রুম-কে প্রেস কর্ণার করার জন্য অনুমোদন দেন।

২১ফেব্রুয়ারী ভাষা দিবসের ‘ভাষা শহিদ স্মারকটি আজ সুকান্ত সাহার হাতে তুলে দেন প্রবীণ সাংবাদিক কিংশুক ভট্টাচার্য ও জাহাঙ্গীর দেওয়ান। বিশেষ করে ডায়মন্ড হারবার মহকুমার অন্তর্গত সকল ধর্মের মানুষের কাছে থেকে মহকুমা শাসক হিসেবে একাধিক প্রসংশা কুড়িয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তারা বলেন কয়েক দশক পর এমন একজন ডায়মন্ড হারবার মহকুমা শাসক হিসেবে আমরা পাশে পেয়ে খুব আনন্দিত পেয়ে ছিলাম। কিন্তু আমাদের এখান থেকে চলে যাওয়ার কথা শুনে খুব কষ্ট হচ্ছে। পরবর্তী আবারও কোনো নতুন মহকুমা শাসক হিসেবে আসলে আমরা মানিয়ে নিয়ে চলতে হবে এটাই স্বাভাবিক প্রকৃতির নিয়ম।