মনুয়া কান্ডের ছায়া এবার বাদুড়িয়াতে! বাদুড়িয়াতে মাছ ব্যবসায়ী খুনের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, সুপারি কিলার দিয়ে খুনের অভিযোগ স্ত্রী ও প্রেমিক বিরুদ্ধে, গ্রেপ্তার স্ত্রী ও প্রেমিক

0
Advertisement

সংবাদদাতা, বসিরহাট :- বাদুড়িয়ায় মাছ ব্যবসায়ী খুনের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ। সুপারি কিলার দিয়ে খুনের অভিযোগ স্ত্রী ও প্রেমিক বিরুদ্ধে। রবিবার সকালবেলায় মাছ ব্যবসায়ী অজয় মণ্ডলের কোপানো দেহ পাওয়া যায় বাজিতপুর কালী তলায়। স্থানীয় বাসিন্দারা প্রথমে দেখতে পায়। তারপর স্ত্রী টুম্পা মন্ডল স্বামী খুনের নাটকের সাক্ষী ছিল, স্থানীয় গ্রামবাসী থেকে রাজনৈতিক দল ,দাবি করেছিল কেউ বিজেপি কর্মী হিসেবে। কিন্তু মৃত অজয় মণ্ডলের ভাই দেব কুমার মন্ডল থানায় অভিযোগ দায়ের করলে, এই খুন নিয়ে পুলিশের কাছে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ ছিল। গত ৪৮ ঘণ্টায় খুনের কিনারা করল বাদুড়িয়া থানার পুলিশ। বারবার রাজনৈতিক রং লাগানো হচ্ছিল বিজেপি কর্মী হিসেবে । গত দু’মাস আগে প্রতিবেশী মিঠুন মন্ডল এর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক ছিল, সেটা দেখে ফেলেছিল তার স্বামী অজয় ,তার পরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলছিলো গন্ডগোল বসসা। তারই অবসান ঘটাতে টুম্পা তার প্রেমিককে দিয়ে পরিকল্পিতভাবে খুন করার নাটক তৈরি হয়েছিল টুম্পা। এবং মিঠুন এই খুনের পিছনে পরিকল্পনা করেছিল এবং পরে ঘটনা স্হলে রেইকি করেছিল। এমন অভিযোগ রয়েছে পুলিশের কাছে টুম্পা ও তার প্রেমিক মিঠুন। ৮০ হাজার টাকা দিয়ে সুপারি কিলার ভাড়া করে নিজের স্বামীকে খুন করেছে বলে অভিযোগ পুলিশের, কাছে স্বামী কখনও বেরোচ্ছে ভোরবেলা মাছ কিনতে, মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেছিল প্রেমিক ও দুষ্কৃতীদের সঙ্গে ।রবিবার ভোররাতে বেরোনোর পর এই মোবাইল ফোনে জানিয়ে দেয়া হয়। তারপরে মোটরসাইকেলে এসে দুষ্কৃতীরা তার মুখে এলোপাতাড়ি কুপাতে থাকে। ঘটনাস্থলে মৃত্যু অজয়ের। তারপরে পুলিশের কাছে ঘন ঘন বয়ান বদল করায় ধন্দে পরে পুলিশ। পরে পুলিশ ৪৮ ঘন্টা জেরার মুখে রিতি মত কান্নায় ভেঙে পরে টুম্পা। স্বীকার করে নেয় তার প্রেমিক মিঠুন ও দুষ্কৃতীদের ভাড়া করে তার স্বামীকে খুন করিয়েছে। একটাই কারণ মিঠুনের সঙ্গে টুম্পার অবৈধ সম্পর্ক দেখে ফেলায় ,চিরতরে তার স্বামীকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্য এই পন্থা বেছে নিয়েছিল। বারাসাতে মুনিয়া কান্ডের ছায়া এবার বাদুড়িয়া। মঙ্গলবার ভোররাতে টুম্পা ও তার প্রেমিক বাদুড়িয়া থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। মৃত অজয় মণ্ডল এর বাবা গোবিন্দ মন্ডল বলেন তার বৌমা ও প্রেমিক সঙ্গে যারা পরিকল্পিতভাবে খুন করেছিল তাদের চরম ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন মৃত অজয় মণ্ডলের যে 7 বছরে পুত্র সন্তান রয়েছে তার দাদু দিদা তাকে মানুষ করবেন বলেও জানিয়ে দিয়েছেন এই সন্তান তাকে দেয়া হবে না ধৃত দুজনকে মঙ্গলবার বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হয়। বাদুড়িয়া থানার পুলিশ ধৃতদের পুলিশ হেফাজতে আবেদন জানায় বসিরহাট মহকুমা আদালতে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + 17 =