অলোক আচার্য, মধ্যমগ্রামঃ- বাঙালির প্রিয় খেলা ফুটবল। ফুটবল খেলার ঐতিহ্য ও জনপ্রিয়তা কে ধরে রাখতে মঙ্গলবার দুপুরে মধ্যমগ্রাম বসুনগরে শুরু এম এল এ কাপ আমন্ত্রণ মূলক আট দলের নকআউট পর্যায়ে এক বিরাট ফুটবল প্রতিযোগিতা। ফুটবল প্রতিযোগিতা শুভ উদ্বোধন করেন মধ্যমগ্রাম বিধানসভার বিধায়ক রথীন ঘোষ ও পরিষদীয মন্ত্রী ও বিধায়ক তাপস রায়।

উপস্থিত ছিলেন আইএফএ র সভাপতি অজিত বন্দ্যোপাধ্যায় ও এআইএফএফ-র সহ সভাপতি সুব্রত দত্ত। ছিলেন একঝঁক ফুটবল নক্ষত্র। ফুটবলার দেবজিৎ ঘোষ, দেবব্রত সরকার, বিকাশ পাঁজি, তপন মাইতি, অভিজিৎ রায় চৌধুরী, পার্থ চক্রবর্তী অভিনেতা ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায় সহ মধ্যমগ্রাম এলাকার অতীত দিনের দিকপাল ফুটবলার এবং ক্রীড়াবিদরা। খেলা শুরুর আগে স্মৃতি চারণ করে শ্রদ্ধা জানান হয় ফুটবল রাজপুত্র দিয়াগো মারাদোনা ফুটবল নক্ষত্র পি কে ব্যানার্জি এবং চুনী গোস্বামী কে।বিধায়ক রথীন ঘোষ আইএফএ সভাপতি অজিত বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে ফুটবল তুলে দেন।

খেলার প্রথম দিন পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ বনাম সার্দান সমিতি মুখোমুখি হয়। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ ৩-২গোলে পরাজিত করে সার্দান সমিতিকে। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের পক্ষে জয়সূচক গোল তিনটি করেন কিশোর, মহম্মদ সামিম, মহেন্দর সিং। সার্দান সমিতির হয়ে গোল করেন গুডলাক এবং এডামাস।সুদৃশ্য ট্রফি নিয়ে ব্যান্ড পার্টি সহযোগে খেলোয়াড় মন্ত্রী বিধায়ক মাঠ প্রদ ক্ষীণ করে।

বিধায়ক রথীন ঘোষ বলেন, মধ্যমগ্রাম শহরে ফুটবল খেলার একটা ঐতিহ্য রয়েছে। মধ্যমগ্রাম হাইস্কুল সাত বারের সন্তোষ ট্রফি জয়ের সুনাম অর্জন করে বহু অতীত দিনের দিকপাল ফুটবলাররা শহরের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। সেই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে রথীন ঘোষ ফ্যানস ক্লাব আয়োজন করেছে আট দলের বিরাট নক আউট পর্যায়ে ফুটবল প্রতিযোগিতা। কলকাতা মাঠে প্রথম ডিভিশনের নামীদামী খেলোয়ার খেলছে। ইন্ডিয়ান ফুটবল এসোসিযেশনের কর্মকর্তারা উপস্থিতিতে শহরের ফুটবল খেলার জনপ্রিয়তাকে ধরে রাখতে পারবে ধারণা বলেন বিধায়ক।

উপস্থিত ছিলেন মধ্যমগ্রাম পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য অরবিন্দ মিত্র, প্রকাশ রাহা, সুভাষ বন্দ্যোপাধ্যায়, সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের কোঅর্ডিনেটরা ও অতীত দিনের দিকপাল ফুটবলার ক্রীড়াবিদরা সংগঠক। ফুটবল খেলা দেখতে মাঠে দর্শকদের উপস্থিতি ছিল লক্ষনীয।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 + 17 =