অলোক আচার্য, মধ্যমগ্রামঃ- ক্রমবর্ধমান করোনা। করোনা পরিস্থিতিতে মধ্যমগ্রাম রেলওয়ে হকার্স ইউনিয়ন ও রেড ভলান্টিয়ার সদস্যরা তাদের নিজেদের অর্থ দিয়ে করোনা রোগী ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের জন্য মাত্র এক টাকার বিনিময়ে দ্বিপ্রাহরিক খাবার বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার চালু করল সোমবার দুপুরে।

করোনা আক্রান্ত ও তাদের পরিবারের জন্য পুষ্টি কর খাদ্য সরবরাহ করা শুরু করল এই লকডাউন ঘোষণার পর। সোস্যাল মিডিয়া গ্রুপে এবং ফেসবুকে চারটি হেল্পলাইন নম্বর দেওয়া হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৮টার মধ্যে নাম নথিভুক্ত করতে হবে। দুপুরে রান্না করা পুষ্টিকর খাবার পৌঁছে যাবে করোনা আক্রান্ত পরিবারের বাড়ি বাড়ি। করোনা রোগীর পরিবারকে জানাতে হবে তাদের নাম ও সদস্যদের। টোটো বা অটোরিকশা করে রেলওয়ে হকার ও রেড ভলান্টিয়ার সদস্যরা নির্দিষ্ট জায়গায় খাবার পৌঁছে দেবেন।

প্রতিদিন যেমন অর্ডার আসবে তেমনই খাবার পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানান রুপ বসু, অরুপ সাহারা। মধ্যমগ্রাম থানার প্রশাসনের অনুমতি সাপেক্ষে রেলওয়ে হকার্স ইউনিয়ন ও রেড ভলান্টিয়ার যৌথ উদ্যোগে এই মানবিক প্রয়াস। মূল উদ্দেশ্য হল যাতে করোনা আক্রান্ত রোগী এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা বাইরে বের না হল। তাদের থেকে সংক্রমণ না ছড়ায়। সেই জন্যই রোগী ও তার পরিবারের সদস্যদের আপাতত এক বেলা দুপুরে পুষ্টিকর খাবার দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে সোমবার থেকে।

পাশাপাশি করোনা রোগীদের ২৪ ঘন্টায় অক্সিজেন পরিষেবা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। দুটি সিলিন্ডার মজুত করা রয়েছে রোগীদের জরুরি ভিত্তিতে আপৎকালীন পরিষেবায়। সোমবার দুপুরে ভাত, উচ্ছে সিদ্ধ, পটল ভাজা, চিকেন ও লেবু দেওয়া হয়েছে। মধ্যমগ্রাম রেলওয়ে হকার্স ইউনিয়ন সিটু নেতা অরুপ সাহা জানান মধ্যমগ্রামে রেলওয়ে হকাররা ও রেড ভলান্টিয়ার এর যৌথ উদ্যোগে এই এক টাকার বিনিময়ে মধ্যমগ্রাম নব বারাকপুর পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য। এই লকডাউনে বহু করোনা রোগী ও পরিবারের সদস্যরা ঘরবন্দী কেউ বা সেফ হোমে আইসোলেশনে। বহু মানুষ খাবার যোগার করতে পারছেন এই অতিমারি সঙ্কটকালে। সেই সব করোনা আক্রান্ত রোগীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে দুপুরের খাবার পৌছে দেওয়া শুরু হল সোমবার থেকে।

যতদিন লকডাউন চলবে এই ভাবে খাবার ও আপৎকালীন জরুরি ভিত্তিতে অক্সিজেন পরিষেবা পৌঁছে দেবে হকার্স ইউনিয়ন ও রেড ভলান্টিয়ার সদস্যরা। মধ্যমগ্রাম রেল স্টেশন চত্বরে শুভানুধ্যায়ীরা ও এগিয়ে আসে সহায়তা করে এই মহতি মানবিক সামাজিক কর্মকান্ডে। সোমবার ৬৪ জনকে দুপুরের খাবার বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়। এই উদ্যোগ খুশি এলাকার করোনা আক্রান্ত পরিবার ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

five × five =