বাইজিদ মন্ডল, মগরাহাটঃ- করোনা সংক্রমণ আগের তুলনায় এখন কিছুটা সংক্রমণ কম, করোনা মুক্ত নয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে এখন গ্রাম গঞ্জের হাট বাজার ও পথে সাধারণ মানুষের মধ্যে মাস্ক ব্যবহার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে না। এখনও অনেকে বেপরোয়া ভাবে হাটে বাজারে এবং পথে মাস্ক ছাড়াই ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সেই সমস্ত নাগরিকদের সচেতন করতে মাস্ক, স্যানিটাইজার ও শীত বস্ত্র বিতরণের মাধ্যমে সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষদের পাশে দাঁড়ালো মগরাহাট পশ্চিম ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস জয়হিন্দ বাহিনী, উস্থী দক্ষিন তৃণমূল মহিলা কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেস সংখ্যালঘু সেল।

করোনা বিধি মেনেই নাজরা হাজির স্কুল মাঠে এই অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হল। এই সামাজিক কাজে প্রধান অতিথি হিসেবে এখানে উপস্থিত ছিলেন কার্তিক গাঙ্গুলি সভাপতি রাজ্য তৃনমূল কংগ্রেস জয়হিন্দ বাহিনী, দিলীপ মন্ডল প্রতিমন্ত্রী রাজ্য পরিবহন দপ্তর। রাজ্যের প্রাক্তন সংখ্যালঘু মন্ত্রী তথা মগরাহাট পশ্চিম বিধায়ক গিয়াস উদ্দিন মোল্লা।

তিনি বলেন, এই মাঠে নানা অনুষ্ঠান ও খেলাধুলা হয়, তাই এই মাঠটিকে আরও উন্নত করতে হবে। তিনি আরও বলেন, রাজ্য সরকার মানুষের পাশে আছে। তাই তারা বিপুল সংখ্যা গরিষ্ঠতা নিয়ে পুনরায় ক্ষমতায় এসেছে। তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চিরকাল মানুষের কল্যাণে নিয়োজিত আছেন বলে জানান তিনি । এই সুন্দর ও সামাজিক অনুষ্ঠানে অনেক গরীব মানুষদের শীত বস্ত্র বিতরণও করা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সভাপতি সুন্দরবন জেলা তৃণমূল কংগ্রেস তথা কুল্পি বিধায়ক যোগরঞ্জন হালদার, দক্ষিন ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল জয়হিন্দ বাহিনীর সভাপতি পল্লবকান্তি ঘোষ, আইএনটিটিইউসি-র সুন্দরবন জেলা সভাপতি তথা মন্দিরবাজারের বিধায়ক জয়দেব হালদার, সুন্দরবন জেলা তৃণমূল কংগ্রেস যুব সভাপতি বাপী হালদার, সুন্দরবন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী পূর্ণিমা হাজারিকা, দ: ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের সদস্যা তন্দ্রা পুরকাইত, দ:২৪ পরগনা জেলা পরিষদের সদস্য, মুজিবর রহমান মোল্লা, মগরাহাট ১নং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মিনুফা বেগম, মানবেন্দ্র মন্ডল সহ সভাপতি মগরাহাট ১নম্বর পঞ্চায়েত সমিতি সহ আরও অনেকে।

বিধায়ক যোগরঞ্জন হালদার তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় তাঁরা সারা বছরই নানা সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন করে থাকেন I এই করোনা মহামারীর মধ্যেও সকল মানুষের পাশে ছিলেন বলেও জানান।