সুমন পাত্র, ঝাড়গ্রামঃ- ঝাড়গ্রাম জেলায় প্রথম করোনা অাক্রান্ত হয়ে ছিল সাকরাইল ব্লক। এখানে একসময় রোগীর সংখ্যা ছিল সবচেয়ে বেশী। তাই এখানেই জেলার প্রথম ভ্রাম্যমান কোভিড টেষ্ট ভ্যান তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এখনও সাকরাইল ব্লকে কেস অনেকটাই বেশী। কিন্তু টেষ্ট করতে হাসপাতালে অাসছেন না অনেকেই। তাই এবার তাদের দুয়ারে পৌঁছে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রোগী কল্যান সমিতি।

আজ সাকরাইলের ভাঙাগড় হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে এই সিদ্ধান্তের কথা কমিটি কে জানান গোপীবল্লভপুরের বিধায়ক ডাঃ খগেন্দ্রনাথ মাহাত। করোনা সময়ে সরকারের নির্দেশ সঠিক ভাবে হাসপাতাল গুলো পালন করছে কিনা? অথবা মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে কোনো অভিযোগ অাছে কিনা জানতে পর পর তার বিধানসভা এলাকায় হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্র পরিদর্শনে যাচ্ছেন তিনি।

নিজে দীর্ঘ দিন বিএমওএইচ থাকার দরুন যেখানে যা খামতি চোখে পরছে সেই অনুযায়ী পরামর্শ দিচ্ছেন। তার বক্তব্য কোনোমূল্যে চিকিৎসা পরিষেবায় ফাঁক থাকা চলবে না। মুখ্যমন্ত্রী যা নির্দেশ দিয়েছেন সে অনুযায়ী প্রতিটা মানুষের কোভিড টিকা থেকে শুরু করে স্ব্যাস্থ্য ব্যবস্থা, সমস্তটাই নিশ্চিত করতে হবে। সেই অনুযায়ী অাজ ভাঙাগড় হাসপাতালে রোগীকল্যান সমিতির সাথে মিটিং করে হাসপাতালের খামতি গুলো অবিলম্বে পুরনের নির্দেশ দেন। সিদ্ধান্ত বাড়িতে পৌঁছে কোভিড টেষ্ট করার।

ডাক্তার বিধায়কের হঠাৎ করে এই পরিদর্শন , এবং গোটা হাসপাতাল ঘুরে দেখায় খুশি রোগীর পরিবারের লোকজন। এতে পরিষেবা অারো ভালো হবে বলে মনে করছেন তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

13 − 3 =