নিজস্ব প্রতিনিধি : নিজেদের অস্ত্র বুমেরাং হয়ে আঘাত হানল পাকিস্তানের উপর। আর সেই অস্ত্রের ঘায়ে আপাতত যন্ত্রণায় ছটফট করছেন ইমরান খানের দেশের ক্রিকেট বোর্ড। বিসিসিআইয়ের বিরুদ্ধে ৪৯২ কোটি টাকার মামলা করেছিল পাক ক্রিকেট বোর্ড। সেই মামলায় হেরে এখন তাঁদের কার্যত কোনঠাঁসা অবস্থা। আইসিসির তরফে বলা হয়েছে, বিসিসিআই-এর আইনি খরচের ৬০ শতাংশ দিতে হবে পাক বোর্ডকে। ৭০ মিলিয়ন ডলার-এর মামলা করে শেষপর্যন্ত নিজেদেরকেই এভাবে ফেঁসে যেতে হবে, তা বোধ হয় স্বপ্নেও ভাবেননি পাক বোর্ডের কর্তারা।

২০১৪ সালে ভারত-পাকিস্তান দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে মউ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সেই চুক্তির শর্ত মেনে ভারতীয় বোর্ড তাদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজ খেলছে না। এমনটাই অভিযোগ করেছিল পাক বোর্ড। দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক এতটাই জটিল আকার নিয়েছিল যে ভারত কোনওভাবেই পাকিস্তানের সঙ্গে সিরিজ খেলত রাজি হয়নি। ফলে সিরিজ বাতিল হওয়ায় তাদের বড়সড় আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হতে হয়েছিল। এমনটাই অভিযোগ জানিয়েছিল পিসিবি। তারই পরিপ্রেক্ষিতে ০ মিলিয়ন ডলার-এর মামলা করে তারা। কিন্তু আইসিসির ডিসপুট প্যানেল শেষমেশ পিসিবির অভিযোগ খারিজ করে দেয়। তার পরই পাক বোর্ডের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করে ভারতীয় বোর্ড। এবং সেই মামলায় জিতেছে বিসিসিআই। ফলে এবার ভারতীয় বোর্ডের মামলার জন্য খরচ হওয়া অর্থের ৬০ শতাংশ ফিরিয়ে দিতে হবে পাক বোর্ডকে।

শুধু এটুকু জরিমানাতে অবশ্য রেহাই মেলেনি পাক বোর্ডের। এই মামলার জন্য আইসিসির প্রশাসনিক খরচের ৬০ শতাংশও দিতে হবে পিসিবিকে। কারণ, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল জানিয়েছে যে পাক বোর্ডের করা সেই মামলা ভিত্তিহীন। আইসিসির কাছে এই মামলা নিয়ে পুনরায় আবেদন করতে পারবে না পিসিবি। ফলে আর্থিক খরচের হাত থেকে বাঁচার  সব দরজাই তাদের কাছে বন্ধ।