নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালনগরঃ- নিজের বাড়িতে বিদ্যুৎ না থাকায় ট্রান্সফর্মারে তালা দিয়ে বিস্তীর্ণ এলাকা অন্ধকার করে রাখলেন তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যা, পুলিশের গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখালো ক্ষুব্দ বাসিন্দারা। অভিযোগ, নেত্রীর বাড়িতে বিদ্যুৎ নেই তাই এলাকায় বিদ্যুৎ থাকবে না। এমন কথা জানিয়ে এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ ছিন্ন করে ট্রান্সফর্মারে তালা লাগিয়ে দিল উত্তর ২৪ পরগণা জেলার গোপালনগর ২ পঞ্চায়েতের তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্যা কাজল মন্ডল।

নেত্রীর ইচ্ছায় মঙ্গলবার বিকেল থেকে অন্ধকারে ডুবে রইল গোপালনগর থানার নতুনগ্রাম সুবাসিনী বিদ্যালয়ের আশেপাশের বিস্তীর্ণ এলাকা। অভিযুক্ত পঞ্চায়েত সদস্যার ঘটনায় ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা গোপাল নগর থানায় গিয়ে লিখিত জমা দেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে মঙ্গলবার রাত ১১টা পর্যন্ত ট্রান্সফর্মারের তালা খুলে বিদ্যুৎ চালু করতে ব্যার্থ হয়। পুলিশের বিরুদ্ধে তৃণমূলের মেম্বারের তাবেদারী করার অভিযোগ এনে পুলিশের গাড়ি আটকে বিক্ষোভ শুরু করে বাসিন্দারা।

বেআইনিভাবে এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেওয়ায় পঞ্চায়েত সদস্যা শাস্তির দাবি করেছে বাসিন্দারা। যদিও এ বিষয়ে বক্তব্য দিতে অস্বীকার করেছে কাজল মন্ডল। সাংবাদিকরা খবর করতে গেলে তাদের সঙ্গে অভব্য আচরণ করে কাজল মন্ডলের অনুগামীরা ।

এই বিষয় বিজেপির বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি মনস্পতি দেব জানিয়েছেন, এটা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, পুলিশের মদতে গ্রামে সন্ত্রাস চালাতে ও লুঠ করবে বলে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করেছিল তৃণমূল। এলাকার মানুষকে ধন্যবাদ জানাবো সেটা রুখে দেবার জন্য।

বনগাঁ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান শংকর দত্ত জানিয়েছেন, আইনের বাইরে গিয়ে কেউ কাজ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে । বিজেপির বক্তব্যের কোন প্রতিক্রিয়া দেওয়ার প্রয়োজন নেই বলে তিনি জানিয়েছেন।