বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- ফের শুরু হতে চলেছে দুয়ারে সরকার। আর সেই দুয়ারে সরকারের কর্মসূচিতে এবার কন্যাশ্রী প্রকল্পের মতোই নব সংযোজন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার। প্রকল্পের সূচনা হবে আগামী ১৬ ই আগস্ট থেকে ১৫ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। দুয়ারে সরকারের প্রস্তুতি, লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ঘোষিত কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তৈরি করার লক্ষ্যে, এখন থেকে সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘুরে সমাধান করছে তৃণমূল কংগ্রেসের যুবনেতা ও ডা:হা: সরিষা অঞ্চলের অবজারভার শামীম আহমেদ মোল্লা।

আজ ডা:হা: ২নং ব্লকে প্রস্তুতি বৈঠকে পাড়ায় চায়ে পে আড্ডা আয়োজন ছিল। দুয়ারে সরকার কর্মসূচির নানান দিক ও প্রকল্পের রূপায়ণ নিয়ে আলাপ আলোচনার আয়োজন করা হয় এদিন। লক্ষ্মীর ভান্ডারে বাড়িতে থাকা গরিব মহিলারা ৫০০/ ১০০০ টাকা পাবেন এই নতুন প্রকল্পে।

স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে যারা রয়েছেন তারাই দুয়ারে সরকারে প্রাধান্য পাবেন বলে জানানো হয়েছে। খাদ্যসাথী প্রকল্পের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে এদিনের প্রস্তুতি সভায়। এবং পেট্রোল ডিজেল রান্নার গ্যাস সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিষের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানানো হয় তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে বিজেপিকে দুর্নীতিবাজ ধান্দাবাজ সরকার বলে কটাক্ষ করেন শামীম আহমেদ মোল্লা।

তিনি বলেন, গরিবের অবস্থা খুবই খারাপ। ব্যাংক, বিমা, রেল সমস্ত কিছু বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। কোনদিন নরেন্দ্র মোদী বিক্রি হয়ে যায় সেইজন্য আমরা অপেক্ষা করছি। দুয়ারে সরকার কর্মসূচিকে গুরুত্ব দিয়ে কাজকর্মের বার্তা দেন তিনি। আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচন পর্যন্ত মাথা ঠান্ডা রেখে নম্র ভদ্রভাবে কাজ করলে দিদি আরও কুড়ি বছর থাকবে বলে আশাপ্রকাশ করেন তিনি।করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী দিনে সরিষাতে ঐতিহাসিক মানুষের জমায়েত করার বার্তা দেন শামীম আহমেদ মোল্লা। দলের কাজকর্মের রূপায়ণের প্রশ্নে এক হয়ে কাজকর্ম চালিয়ে যাওয়ার বার্তা দেন তিনি।

এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন ডা:হা: ২নং ব্লক সরিষা অঞ্চলের অবজারভার শামীম আহমেদ মোল্লা, সরিষা অঞ্চলের কৃষাণ সেলের সভাপতি নীতিশ মোদক ও তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্ব সহ অনেকে।