সংবাদদাতা, বারাসাত :- বিপুল পরিমাণ কচ্ছপ সহ দুই পাচার কারিকে গ্রেপ্তার করলো ওয়াইল্ড লাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল ব্যুরো ও উত্তর ২৪ পরগনা জেলা বন দপ্তরের বারাসাত ডিভিশনের অফিসাররা।ধৃতদের নাম গৌর প্রামানিক(৫৬) ও সঞ্জয় সাধু (৩৬)।আজ সকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বারাসতের সুভাষপল্লী এলাকা থেকে হাতেনাতে ধরা হয় তাদের।বনদপ্তর সূত্রে জানা গেছে,এই দুই তদন্ত কারি সংস্থার কাছে খবর ছিল যে আজ সকালে একটি টাটা সুমো করে ওড়িশা থেকে বিপুল পরিমাণ কচ্ছপ আসছে।এবং তা বারাসাত সুভাষ পল্লীর গৌর প্রামানিকের বাড়িতে আনলোড হবে। সেই মতো তারা ভোর থেকে রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল ।কিন্তু বেশ কিছুক্ষণ সময় কেটে গেলেও গাড়ি না আসলে সন্দেহ হয় ওই দুই সংস্থার অফিসারদের।এরপর, তাঁরা খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারেন, গৌরের বাড়িতে গাড়ি ঢুকে গেছে।তখনই গৌরের বাড়িতে রেড করেন অফিসাররা।জেলা বনদপ্তররের রেঞ্জ অফিসার সুকুমার দাস বলেন, গৌরের বাড়িতে অভিযানের আগেই বেশিরভাগ কচ্ছপ ডিস্ট্রিবিউশন হয়ে গেছে অন‍্য জায়গায়।সেখানে তল্লাশি চালিয়ে প্রায় ৬৭ টি কচ্ছপ উদ্ধার হয়।গৌর প্রামানিক ও সঞ্জয় সাধু নামে দুই পাচারকারীকে হাতেনাতে ধরি আমরা।মাছের কয়েকটি পেটিতে ওই কচ্ছপগুলো পাচার করার উদ্দেশ্য ছিল তাদের।টাটা সুমো গাড়িটিও বাজেয়াপ্ত করেছি আমরা।বাকি কচ্ছপগুলো কোথায় হান্ড‌ওভার করা হয়েছে তা ধৃত দু-জনকে জেরা করে জানার চেষ্টা চলছে। ধৃতদের বিরুদ্ধে ওয়াল্ড লাইফ অ‍্যাক্টে মামলা রুজু হয়েছে।ধৃত গৌর প্রামানিক ও সঞ্জয় সাধুকে আজ দুপুরে বারাসাত আদালতে তোলা হয়।বিচারক তাদের চারদিনের জেল হেফাজতের আদেশ দেন।