সংবাদদাতা, বসিরহাটঃ- স্বরূপনগর সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পাচার হওয়ার আগে পুলিশি তৎপরতায় হাকিমপুর ও তারালি গ্রাম থেকে ধরা পড়ল ২০ টি বিরল প্রজাতির পাখি। যার বাজার মূল্য বর্তমানে লক্ষাধিক টাকা। শুক্রবার পাখিগুলি বসিরহাট রেঞ্জের বন দফতরের হাতে তুলে দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত,একদিন আগে হাসনাবাদ সীমান্ত থেকে কয়েক লাখ টাকার বিরল প্রজাতির পাখি ও পশু ধরা পড়েছিল। বনদফতর সূত্রে জানানো হয়েছে,পাখিগুলি আপাতত চিঁড়িয়াখানায় রাখার ব্যবস্থা করা হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি বসিরহাটের বিভিন্ন সীমান্তবর্তী গ্রাম থেকে মূল্যবান পশু এবং পাখি বাংলাদেশে পাচারে একটি চক্র বেশ সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এ দিন ভোরে স্বরূপনগরের সীমান্তবর্তী গ্রাম হাকিমপুর এবং তারালিতে বেশ কিছু বিরল প্রজাতির কয়েক লক্ষ টাকা মূল্যের বিদেশি পাখি পাচারের জন্য আনা হয়েছে বলে খবর পায় স্বরূপনগর থানার ওসি। এই খবর পেয়ে পুলিস ঘটনাস্থলে যায়।

তবে তত সময়ে পুলিশ আসার খবর পেয়ে এলাকা ছেড়ে পালায় পাচারকারীরা। পাখিগুলি উদ্ধার করে বসিরহাট বন দফতরের হাতে তুলে দেয় পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান পাচারকারীরা মায়ানমার থেকে এই পাখিগুলি এনে বাংলাদেশে পাচার করছিল। এর সঙ্গে আন্তর্জাতিক পাচারকারীদের যোগ আছে কিনা তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। পাশাপাশি এলাকা পাচারকারীদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।