বসিরহাট স্টেশন সংলগ্ন রেলের জমিতে মন্দির ভাঙাকে কেন্দ্র করে রেল অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা, পরে পুলিশের আশ্বাসে আন্দোলন তুলে নেয়

0

সুজয় মন্ডল, বসিরহাট :-  উওর ২৪ পরগণার হাসনাবাদ শাখার বসিরহাট স্টেশনের ১২ নম্বর গোডাউন সংলগ্ন উত্তর বাগুন্ডি রাজীব পল্লী ১ নং কলোনি এলাকায় একটি হরি মন্দির তৈরির উদ্যোগ নেন স্থানীয় বাসিন্দারা। রেলের জমিতে মন্দির তৈরী করায় ঘটনাস্থলে এসে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেয় রেলের আরপিএফ। সেই অবস্থায় গ্রামবাসীদের সঙ্গে আলোচনার মধ্যেই নির্মীয়মান মন্দিরের অংশ ভেঙে দেয় রেলের আরপিএফ। আরপিএফের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ তোলেন গ্রামবাসীরা। আরপিএফের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে স্থানীয় সুব্রত হাজরা বলেন, ‘গত ২৫ বছর এই জমিতে কীর্তন ও নানা অনুষ্ঠান করছি আমরা। রেলের আধিকারিকদের লিখিতভাবে না জানানো হলেও তারা সব কিছুই জানেন এই মন্দির নির্মাণের বিষয়ে। অথচ কোন কথা শোনার আগেই তৈরী হওয়ার সময় মন্দির ভেঙে দেন আর পি এফ এর বড় বাবু ও তার লোকেরা’। মন্দির ভেঙে দেওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়তেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠেন গোডাউন সংলগ্ন রাজীব কলোনির বাসিন্দারা। গতকাল বসিরহাট স্টেশনের আরপিএফ অফিস ঘেরাও করার পাশাপাশি স্টেশনে রেল অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন তারা। উত্তেজিত গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের ফলে রাতে হাসনাবাদ শাখায় ব্যাহত হয় ট্রেন চলাচল। হাসনাবাদ শাখার বেশকিছু স্টেশনে আটকে পড়ে ট্রেন। খবর পেয়ে বসিরহাট স্টেশনে আসে বিশাল পুলিশবাহিনী ও রাপ। এদিকে বসিরহাট ধোপাপাড়া লেভেল ক্রসিংয়ে রাত সাড়ে নটা নাগাদ হাসনাবাদ গামী ট্রেন আটকে যাওয়ায় বিপাকে পড়তে হয় যাত্রীদের। বাধ্য হয়ে ট্রেন থেকে নেমে কেউ পায়ে হেঁটে কেউ আবার অটোরিক্সা কিংবা টোটোরিক্সায় চেপে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। প্রায় দেড় ঘন্টা পরে রাত ১১ টা নাগাদ স্বাভাবিক হয় ট্রেন চলাচল।
ঘটনার বিষয়ে কথা বললে বসিরহাট স্টেশন এর দায়িত্বপ্রাপ্ত জিআরপি আধিকারিক তাঞ্জিলুর রহমান বলেন, ‘ রেলের জমিতে মন্দির ভাঙাকে কেন্দ্র করে সাময়িক উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল কিন্তু আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেওয়ার পরে কিছু সময়ের মধ্যেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়’। বসিরহাট থানার পুলিশের হস্তক্ষেপে বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেওয়ার পর আন্দোলন তুলে নেন গ্রামবাসীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 3 =