সুজয় মণ্ডল, বসিরহাটঃ- তৃণমূল এবং সংযুক্ত মোর্চার কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের । এই ঘটনায় ১২ জন আহত। ষষ্ঠ দফায় বৃহস্পতিবার দুপুরে বাদুড়িয়ার রাজবেড়িয়া গ্রামে ১২৭ বুথের এই ঘটনায়। এই বুথে বাম ও কংগ্রেস সমর্থকরা ভোট দিতে পারছিলেন না বলে অভিযোগ। বিক্ষোভ দেখালে তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে বচসা বাধে, সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দুই পক্ষ। তীব্র উত্তেজনার সৃষ্টি হয় লাঠি লোহার রড নিয়ে দফায় দফায় একে অপরের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে কারো হাত ভাঙা ,কারো পা ভাঙে। দুই পক্ষের সাত থেকে আট জন জখম হয়েছেন।

এই ঘটনার খবর পেয়ে বসিরহাটের এসডিপিও অভিজিৎ সিংহ মহাপাত্র বিশাল বাহিনী নিয়ে এলাকায় গিয়ে কোনরকমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিন সকাল থেকেই নির্বিঘ্নে ভোট প্রক্রিয়া শুরু হলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাদুড়িয়া এবং স্বরূপনগরে একাধিক বুথ বিরোধীরা এজেন্ট বসতে দিচ্ছে না এবং ভোটারদের প্রভাবিত করছে ভয় দেখানো হচ্ছে এরকম নানা অভিযোগ ওঠে ।বুধবার রাতে বাদুড়িয়া ও স্বরূপনগর বিধানসভার বিভিন্ন এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের ভয় দেখানো বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। স্বরূপনগরের সীমান্ত লাগোয়া অমুক গ্রাম এদিন সকাল থেকে ওই গ্রামে শতাধিক বিজিপি কর্মীদের ভোট দিতে দেওয়া হচ্ছে না এবং বাড়ি থেকে বেরোলেই নানাভাবে হুমকি দেওয়া হচ্ছে এই অভিযোগ করে গ্রামবাসীরা। এই খবর পেয়ে পুলিশ এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রথম দিকে বিশেষ গুরুত্ব না দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

এরপর স্বরূপনগরের ওসির নেতৃত্বে বিশাল বাহিনী গিয়ে বাড়ি থেকে ভোটারদের বের করে আনে ভোট দেওয়ার জন্য। এবং তাদের মনে সাহস জোগাতে বলা হয় ভোট দিলে কেউ যদি হুমকি দেয় তা দেখে নেবে পুলিশ। আপনারা নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে যান পুলিশ বাড়ি থেকে ভোটারদের সংগ্রহ করে ভোটকেন্দ্রে ভোট দেওয়ার পর আবার তাদের বাড়িতে কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং পুলিশ পৌঁছে দিয়ে আসে। এছাড়াও বিক্ষোভ-সংঘর্ষ খবর পাওয়া যায়। আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রচুর পরিমাণে লাঠি উদ্ধার করে পুলিশ ও কেন্দ্র বাহিনী। এই ঘটনার পর বসিরহাটে ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। উত্তেজনা প্রবণ এলাকায় টহল চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + 8 =