বাইজিদ মন্ডল, হুগলিঃ- বিশ্ববরেণ্য ব্যক্তিত্ব,মানব জাতির পথ-প্রদর্শক, শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর জন্মদিন উপলক্ষে মিলাদুন্নবী জলসা মহা সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে সারা বিশ্বব্যাপী। মানবতার মুক্তির দূত হজরত মুহাম্মদ (সঃ) বিশ্ব নবী দিবস উপলক্ষে এবং দাদা হুজুর পীর কেবলা,ও পাঁচ হুজুর কেবলা (রহ:)এর স্মরনে প্রতি বছর ধুম ধামের সঙ্গে পালন করা হয় দুই দিন। গত বছর করোনার প্রভাব বেশি থাকার কারণে অল্প সংখক মানুষদের নিয়ে এই অনুষ্ঠানটি ছোট করে এক দিন করা হয়ে ছিল৷ এবছর করোনার প্রভাব একটু কম থাকার কারনে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা প্রায় ২০ হাজারের অধিক মানুষ হুগলি জেলার জাঙ্গিপারা থানার অন্তর্গত ফুরফুরা শরীফে দাদাপীর ময়দানে সম্প্রীতি মূলক সভা কোভিড বিধি মেনেই অনুষ্ঠিত হয় ।

এদিন সভায় উপস্থিত ছিলেন ফুরফুরা শরীফের মুখ্য নির্দেশক তথা এই অনুষ্ঠানের আয়োজক পীর আল্লামা ইউসুফ সিদ্দিকী সাহেব, পীর হোসেন সিদ্দিকী, পীরজাদা জুলকিফের সিদ্দিকী, পীরজাদা জুনাইদ সিদ্দিকী, পীরজাদা জুবায়ের সিদ্দীকি, সন্মানীয় শিক্ষক মালদাহ মহ: রেজাউল ইসলাম, মহ: তুরাবুল আলম বারাসাত এবং পীরসাহেব ও পীরজাদাগণ সহ বিশিষ্টজনেরা।

এই অনুষ্ঠানটি মুখ্য ভূমিকা গ্রহণ করেন পীরজাদা জুনাইদ সিদ্দিকী সাহেব, তিনি বলেন স্বাস্থ্য এবং শিক্ষা ব্যবস্থা, রসুল সা: সময়, সকল ধর্ম সমন্বয় শাসন ব্যবস্থা ও এখনকার শাসন ব্যবস্থা তুলনা, ইসলামে নারী শিক্ষা ও নারী অধিকার, প্রতিবেশীর অধিকার, গরীব দুঃস্থ অসহায় মানুষের অধিকার নিয়েও আলোচনা করেন।
জাকাত ভিত্তিক অর্থনীতি ব্যবস্থা তুলনা, ইসলামে ধর্মীয় সহিষ্ণুতা ও উদারনীতি সহ রাষ্ট্রনীতি বর্তমান গণতন্ত্র ব্যবস্থা নিয়ে তুলনা মুলক আলোচনা সহ হিন্দু মুসলমান সকল ধর্ম সমন্বয়ে নিয়ে তিনি বিশেষ এই বার্তা দেন।

এদিনের সভায় হিন্দু মুসলিম সহ সমস্ত ধর্মের প্রতি সম্প্রীতিমূলক বার্তা দেওয়া হয়। সবার শেষে পীর আল্লামা ইউসুফ সিদ্দিকী সাহেব বিশ্ব শান্তি মানব কল্যাণের জন্য দোওয়ার মাধ্যমে সভা সমাপ্তির পর,পরেই অনুষ্ঠানে আগত সকল অতিথি মেহমান দের জন্য খাওয়ার ব্যবস্থাও করেন । এই সর্বধর্ম সমন্বয় সভায় উপস্থিত সকলে ‌এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।