নিজস্ব সংবাদদাতা, বনগাঁঃ- ১২ বছরে প্রেমের পর বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিক বার সহবাসের পর বিয়ে করতে অস্বীকার যুবকের। এমন অভিযোগ উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁর বাবুপাড়ার বাসিন্দা এক যুবকের বিরুদ্ধে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বনগাঁ আদালতের নির্দেশে আজ ওই যুবতীকে বিয়ে করলেন ওই যুবক।

জানা গিয়েছে, উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁর বাবুপাড়ার ২৭ বছরের যুবক কৃষ্ণেন্দু সাহা বনগাঁ কুড়ির মাঠ এলাকার এক যুবতীর সঙ্গে ১২ বছর আগে থেকে প্রেম-প্রণয় শুরু করে । ৬ মাস আগে প্রেমিকা বিয়ের প্রস্তাব দিতে বিয়ে করতে অস্বীকার করে ওই যুবক । প্রেমিকার বাড়ি থেকে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে ওই যুবকের বাড়িতে যায় পরিবারের পক্ষ থেকে । শুরু হয় বাকবিতণ্ডা ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বনগাঁ থানার পুলিশ । প্রেমিকের বিরুদ্ধে বিবাহের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও প্রতারণার জন্যে বনগাঁ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে প্রেমিকা।

অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করে অভিযুক্ত যুবক কৃষ্ণেন্দু সাহাকে। বনগাঁ এডিজে কোর্টের বিচারক শান্তনু মুখোপাধ্যায়ের এজলাসে বিচার শুরু হয়। বিচারকের কাছে মেয়েকে বিয়ে করবেন বলে আবেদন জমা দেয় অভিযুক্ত যুবক ও অভিযোগকারিণী। বিয়ে করলে মিলবে জামিন সেই কারণে মহকুমা আদালতে মধ্যে বিবাহ সম্পন্ন হয় প্রেমিক ও প্রেমিকার ।

আদালত চত্বরে বিয়ে হবার পরে ওই যুবতী জানায় অনেক দিনের সম্পর্ক থাকার পরে বিয়ে করতে অস্বীকার করায় আমি অভিযোগ করেছিলাম । আদালতের নির্দেশে বিয়ে হ’ল। আমি খুব খুশি ।

যুবকের পরিবারের দাবি, ছেলে রাজী হয়েছে বিয়ে করতে আমাদের কোনো অপত্বি নেই । আমাদের বাড়িতে আর বৌ এর মত থাকবে ও ।