সনাতন গরাই, দুর্গাপুর :- কাঁকসার মলানদীঘির গভীর জঙ্গল। সেখানে মানুষ একদম নিরাপদে রাত্রিবেলায় যাতায়াত করত।সবাই জানতো এই জঙ্গল একদম নিরাপদ হয়, না চুরি, ছিনতাই থেকে ডাকাতি। আদৌও কি কেউ জানতো এই জঙ্গলে মাঝে প্রায় প্রত্যেকদিন গাড়ি আটকিয়ে চলতো অনায়াসে ছিনতাই। এই জঙ্গলের রাস্তায় এম্বুলেন্স করে গাড়ি আটকিয়ে বন্দুক দেখিয়ে ছিনতাই করতো বড়গড়িযার ৭ যুবক। চোর তো চোর আর পুলিশ তো পুলিশ। কাঁকসা পুলিশ ও সিভিক গোপন সূত্র পেয়ে ফিল্মি কায়দায় পাকড়াও করে ওই ছিনতাইবাজদের। পাকড়াও করে একজনকে ধরতে পারে, বাকিরা পলাতক। ধৃত ওই যুবককে জেরা করে পুলিশ জানতে পারে তারা সাতজন মিলে কাঁটাবেরিয়া, কখনো সরস্বতীগঞ্জ, কখনো বিস্টুপুরের জঙ্গলে গাড়ি জোর করে গাড়ি দারকরিয়ে ভয় দেখিয়ে ছিনতাই করতো।ওই ধৃত যুবকের নাম সঞ্জয় সিং। সে বড়গড়িয়ার বাসিন্দা। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে বাকিদের গ্রেফতার করার জন্য।