সনাতন গরাই, বর্ধমান :- ফণী বাংলায় না এলেও তার ছোবলে নাজেহাল বাংলার মানুষ।গত সপ্তাহে ফণীর তীব্র রোশে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল ওড়িশা মেদিনীপুর সহ বিস্তীর্ন এলাকা। এবার তীব্র গরমে নাজেহাল বাংলার মানুষ। প্রচন্ড গরম দেখা নেই বৃষ্টির। সকাল ঠিক ১০টা বাজলেই বাড়ি থেকে বেরোনো অস্বাভাবিক হয়ে দাঁড়াচ্ছে। গতকাল মরসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি ছিল বর্ধমান জুড়ে। মাঝে মাঝে গরম হওয়া ও লু বইছে। ফণীর হওয়া পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত বৃষ্টির দেখা মিলছে না। এই সময় চাহিদা আছে ডাবের জল ও ল্যসির। প্রচন্ড গরমের ফলে স্কুল দুই মাস ছুটি দিয়েছে রাজ্য সরকার যার ফলে পড়ুয়ারা এই গরম থেকে কিছুটা হলেও সুষ্ঠ আছে। কিন্তু ছুটি কমানোর দাবি জানাচ্ছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। দুর্গাপুরে প্রচন্ড রোদের তাপে ট্রান্সপার্মার ফেটে পড়ার বিদ্যুৎ বিছিন্ন হয়ে পড়েছিল সাগড়ভাঙ্গা। তীব্র গরমে নাজেহাল দুই বর্ধমানের মানুষ।