অলোক আচার্য, নব বারাকপুরঃ- পেট্রো পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে জেরবার সাধারণ মানুষ। গত ১৪ দিনে তেলের দাম বাড়ল ১২ বার! জ্বালানির লাগাতার এই দাম বৃদ্ধির প্রভাব পড়ছে বাজার দরেও। হু হু করে বাড়ছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম। কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী নীতির ফলে প্রতিদিন পেট্রো পণ্য সহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বেড়েই চলেছে। পেট্রোল ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের অত্যাধিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পথে নামল নব বারাকপুর শহর তৃণমূল যুব কংগ্রেস। তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা ।

মঙ্গলবার বিকেলে কেন্দ্রের লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে মাসুন্দা ছোট বটতলা মোড় থেকে এক সুবিশাল প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি সুমন দে, তৃণমূল মহিলা নেত্রী নির্মিকা বাগচী, পুরসভার উপ পুরপ্রধান স্বপ্না বিশ্বাস, কাউন্সিলার নিখিল মালো, জয় গোপাল ভট্টাচার্য সহ কয়েক হাজার যুব মহিলা কর্মী সমর্থকরা। চারটি ওয়ার্ড পরিক্রমা করে ফেস্টুন প্লাকার্ড নিয়ে তৃণমুল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা অবিলম্বে দাম কমানোর দাবি তোলে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়। পথে নেমে গর্জে ওঠেন। অগনিত মানুষ সামিল হয় মিছিলে।

নব বারাকপুর শহর তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি সুমন দে বলেন, পাঁচ রাজ্যের নির্বাচন শেষ হওয়ার পর থেকে পেট্রো পণ্যের, জ্বালানি রান্নার গ্যাস সহ সমস্ত নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম বেড়েই চলেছে। দেশে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি অব্যাহত। কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী নীতির কারনেই এই ভাবে সমস্ত জিনিসের দাম বাড়ছে। কেন্দ্রেকে অবিলম্বে সমস্ত জিনিসের দাম কমাতে হবে। এভাবে লাগামছাড়া মূল্যবৃদ্ধির ফলে সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ দিনদিন বাড়ছে।

তারই প্রতিবাদে আজ নব বারাকপুরে পাঁচটি ওয়ার্ডের তৃণমূল যুব কংগ্রেস মহিলারা রাস্তায় নেমেছে। অভিনব প্রতিবাদ মিছিল। উনুন রান্নার গ্যাস মোটর বাইক নিয়ে প্রতীকী প্রতিবাদ মিছিল সাড়া ফেলে দেয় এদিন। সেই সাথে কেন্দ্রের মোদি সরকার কে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, আগামীদিনে ও এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদ জারি থাকবে। মিছিলের মধ্যে দিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম চলবে। নব বারাকপুরে শহর জুড়ে প্রতিটি ওয়ার্ডে ধারাবাহিক প্রতিবাদী ধিক্কার মিছিল চলবে।মোদি সরকার গরিবের টাকা কেড়ে বড়লোকদের পকেট ভরছে বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নেতৃত্বরা।