নিজস্ব সংবাদদাতা, পুরুলিয়াঃ- আজ ২১ জুলাই, ঐতিহাসিক স্মরণীয় দিন। ১৯৯৩ সালে ২১ জুলাই সিপিএমের বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে ভোটে কারচুপি প্রতিবাদে ও ভোটাধিকার প্রয়োগের ক্ষেত্রে ভোটার কার্ড চালুর দাবিতে মহাকরণ অভিযান করেন বাংলার অগ্নি কন‍্যা মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়। কিন্তু সেই শান্তি পূর্ণ অভিযানকে ছত্রভঙ্গ করতে নির্বিচারে গুলি চালান পুলিশ।

পুলিশের গুলিতে ১৩ জন কর্মী শহীদ হন। সেই থেকে প্রতিবছর ২১ জুলাই শহীদের স্মরণে ধর্মতলাতে সমাবেশ করেন মমতা ব‍্যানার্জী। ২০১১ সালে তৃণমূল কংগ্রেস রাজ‍্যে ক্ষমতাই আসায় ২১ জুলাই শহীদ সমাবেশ এক অন্য মাত্রা পায়। কিন্তু কোভিড অতিমহামারীর কারনে গত বছরের মত এবছরও ধর্মতলার সমাবেশ বাতিল করতে হয় এবং জননেত্রী তথা মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দেন প্রত‍্যেক সংসদে শহীদের স্মরণ করার জন্য।

নেত্রীর নির্দেশ মতো শহীদদের স্মরণ করা হ’ল পুঞ্চা ব্লকের পানিপাথর অঞ্চলের বিন্দুডি সংসদেও। আজকের শহীদ সমাবেশের মঞ্চেই বিন্দুডি সংসদের ৩ টি ( শম্ভু কালিন্দী, থুলু মাহাত ও জলেশ্বরী সরেন ) পরিবার সিপিআই এম ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন।

যোগদানকারীদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস পরিবারে স্বাগত জানান পুরুলিয়া জেলা পরিষদের সদস‍্যা বন্দনা মাহাত ও বুথ সভাপতি সাধুচরন মাহাত। এছাড়াও শহীদ স্মরণ ও যোগদান সভায় উপস্থিত ছিলেন মানিকলাল মাহাত, অজিত মাহাত, সুধীর মাহাত, বৈদ‍্যনাথ মাহাত, ফনিভূষণ মর্দ্দন‍্যা, ত্রিভঙ্গ মাহাত, অভিনাষ কর্মকার অশোক কুমার মাহাত, সাধন মাহাত, আঘ্নু মাঝি, বেনিমাধব মাহাত সহ বিন্দুডি সংসদের তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী সমর্থক ও মহিলা ব্রিগেড।