সংবাদদাতা, হাবড়াঃ- রাজ্যে বিধানসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন অংশে চলছে বিক্ষিপ্ত অশান্তি। কোথাও আক্রান্ত তৃণমূল। কোথাও বিজেপি। মারধর, বাড়ি ভাঙচুর থেকে বাদ যাচ্ছে না কিছুই৷ কিন্তু এবার পাশের বাড়ি ভাঙচুরে প্রতিবাদ করায় তৃণমূল কর্মী বাড়ি ভাঙচুর করল তৃণমূল কর্মীরাই।

ওয়ার্ডে কেনো বিজেপি বেশি ভোট পেয়েছে। বিজেপিকে ভোট দিয়েছে। এমনটাই অভিযোগ তুলে রবিবার রাতে উত্তর ২৪ পরগণা জেলার হাবড়া ২০ নং ওয়ার্ডের রামকৃষ্ণ পল্লীর বাসিন্দা দেবাশিস সেন গুপ্তর বাড়িতে চড়াও হয় কিছু তৃণমূল কর্মী। বাড়ির দরজায় লাথি মারতে থাকে। তা দেখে পাশের বাড়ির চন্দনা দাস ও তার স্বামী প্রতিবাদ করে। এরপরই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন তৃণমূল কর্মীরা। প্রতিবাদ করতে গিয়ে চন্দনা দাসের বাড়িতে বেধড়ক ভাঙচুর চালায় স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা। এমনটাই অভিযোগ চন্দনা দাসের। এই ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে হাবড়া থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দেবাশিস সেনগুপ্ত ও শিখা সেনগুপ্ত বিজেপিকে ভোট দিয়েছে এমনটাই অভিযোগ তুলে রবিবার রাতে তাদের বাড়িতে চড়াও হয় এক দল তৃণমূল কর্মী। তা দেখে পাশের বাড়ির চন্দনা দাস ও তার স্বামী প্রতিবাদ করতে যায়। তারপরই তাদের বাড়িতে ভাঙচুর চালায় তৃণমূল কর্মীরা।

বাড়ির বাইরে থাকা নতুন বাইক ও জালনা দরজার কাচ ভাঙচুর করে চম্পট দেয়। ঘটনার পর চন্দনা দাস এর পরিবারের লোকজন সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেদন জানায় তাদের সাহায্যার্থে জন্য। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় হাবড়া থানার পুলিশ। রাতেই অভিযুক্ত চারজনকে আটক করে পুলিশ। এই ঘটনার পর থেকেই বাড়ির দরজায় তালা লাগিয়ে আতঙ্কে মধ্যে রয়েছেন দাস পরিবার।