কলমের দুনিয়া,গাইঘাটা :- পণের টাকার জন্য গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ স্বামীর কানাই রায়, শাশুড়ি সাবিত্রী রায়, ননদ পম্পা রায় ও নন্দ জামাই সুবীর কুমার বিশ্বাসের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঘটেছে গাইঘাটা থানার চাঁদপাড়া দেবীপুরে। গতকাল রাতে তাদের বিরুদ্ধে গাইঘাটা থানায় অভিযোগ দায়ের হয়।
সূত্রের খবর, চাঁদপাড়া ঢাকুরিয়ার বিশ্বনাথ সিলের মেয়ে ২৫ বছরের পায়েলর ১ বছর ৮ মাস আগে বিয়ে হয় চাঁদপাড়া দেবীপুর বাসিন্দা কানাই রায়ের সঙ্গে। তাঁদের ৭ মাসের একটা পুত্র সন্তানও আছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে শ্বশুরবাড়ির প্রতিবেশীরা মোবাইলে পায়েলের মৃত্যু সংবাদ দেয়।

অভিযোগ, বিয়েতে মেয়েকে সোনা দিয়ে শাজিয়ে টিভি, সোকেজ, খাট থেকে শুরু করে নগত টাকা দেওয়া হয়েছিল। পরবর্তিতে জানাইয়ের রেলে চাকরীর জন্য মেয়ে চাপ দিয়ে বিভিন্ন ধাপে তিন লক্ষ টাকা নিয়েছে। তার পরও দীর্ঘদিন ধরেই পায়েলের উপরে অত্যাচার করত এবং বাবার বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দিত তার স্বামী, শাশুড়ির, ননদ ও নন্দ জামাই। শুক্রবার রাতে পায়েলের বাবা বিশ্বনাথ শীল তাদের বিরুদ্ধে গাইঘাটা থানায় লিখিত ভেবে খুনের অভিযোগ করে। অভিযোগ পেয়ে স্বামি কানাই রায়, শাশুড়ি সাবিত্রী রায় ও ননদ পম্পা বিশ্বাসকে পুলিশ আটক করে তদন্ত চালাচ্ছে।

*গাইঘাটায় পণের দাবিতে গৃহবধূ মৃত্যুর ঘটনায় কি বললেন মেয়ের বাবা ও মেয়ে দাদা। শুনুন তাহলে*