অলোক আচার্য, নিউ বারাকপুরঃ- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঐকান্তিক ব্যবস্থাপনায় হকারদের টিকাকরণ কর্মসূচি চালু হল রাজ্য জুড়ে। শনিবার সকালে কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহে নিউ বারাকপুর পুরসভার উদ্যোগে পুর এলাকায় শতাধিক হকারদের টিকা দেওয়া হল পুরসভার কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহে। নিউ বারাকপুর পুরসভার তালিকাভুক্ত হকারদের টিকাকরণ কর্মসূচি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য প্রবীর সাহা।

প্রবীর সাহা বলেন, করোনা অতিমারি আবহেও অনেক মানুষ ঘর থেকে বাইরে বেরোতে পারছেন না। কিন্তু হকার ভাই বোনেরা রাস্তায় ফুটপাথে স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় দোকানে ফল সব্জি আনাজ বিক্রি করছেন আবার কেউ এলাকায় ঘুরে ঘুরে লোকের বাড়ি যাচ্ছেন। সেই সব হকারদের কথা চিন্তা করে রাজ্যের মানবিক মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পুরসভার মুখ্য প্রশাসক তৃপ্তি মজুমদারে উদ্যোগে পুর এলাকার চালু হয়েছে হকারদের টিকাকরণ কর্মসূচি। সংক্রমণ যে ভাবে বাড়ছে। করোনা টিকা বাধ্যতামূলক। টিকা নিতে হবে না হলে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি দাড়াবে। যারা প্রথম ডোজ নিচ্ছেন তাদের দ্বিতীয় ডোজ সুনিশ্চিত করতে হবে। হকারদের নিউ বারাকপুর পুরসভার থেকে গত বছর লকডাউনে আম্ফানেও সহায়তা করা হয়েছিল।

শনিবার দুপুরে হকারদের টিকাকরণ কর্মসূচি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নিউ বারাকপুর পুরসভার এনইউএলএম প্রোগ্রাম ম্যানেজার ড. তপন কুমার জানা, পুরসভার করোনা নোডাল অফিসার দেব প্রসাদ রাহা, ডাঃ দেবতোষ দাস, সমাজসেবী সুমন দে সহ পুরসভার কোভিড টিমের স্বাস্থ্য কর্মীরা। পুরসভার হকারদের নোডাল অফিসার তপন জানা নিউ বারাকপুর লাইসেন্স প্রাপ্ত ৩৪৭ জন হকার রয়েছে।

আগামী দিনে সংখ্যা টা বাড়তে ও পারে। এদিন ৪৫-৫৯ বছর বয়সের শতাধিক হকার ভাইবোনেদের টিকা দেওয়া হল কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহে ।ধীরে ধীরে বাকি ১৮-৪০ উর্ধ্বে সপ্তাহের বিভিন্ন দিনে যখন যেরকম ভ্যাকসিন আসবে টিকাকরণ দেওয়া হবে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঐকান্তিক ব্যবস্থাপনায় ও নির্দেশে উত্তর দমদম বিধানসভা বিধায়ক ও স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের প্রচেষ্টায় শনিবার হকারদের টিকাকরণ কর্মসূচি চালু হল ।ধীরে ধীরে বাকি হকারদের ও দেওয়া হবে কোভিশিল্ড টিকাকরণ। শারীরিক দুরত্ব বজায় রেখে সকলেই মাস্ক পরে স্যানিটাইজার করে এদিন টিকা দেওয়া হয় হকারদের।