অলোক আচার্য, নিউবারাকপুর :- কলকাতা উত্তর শহরতলিকে টেক্কা দিয়ে উত্তর ২৪ পরগণা জেলার নিউবারাকপুর শহরে এবছরও থিমের অভিনবত্বে বেশ কিছু মন্ডপে দর্শনার্থীদের ভিড় উপচে পড়ে। জনজোয়ার নববারাকপুরে পুজোর মন্ডপ গুলি তে। নতুন আঙ্গিকে, নতুন সাজে, নতুন ভাবনায় বা নতুন রুপে পুজো মন্ডপ গুলিতে বিভিন্ন ভাবনার প্রকাশ ঘটে। কোথাও গ্রাম্য জীবন, কোথাও আবার সাবেকিয়ানা, কোথাও আবার আধুনিক প্রযুক্তিকে তুলে ধরা হয়েছে। নিউ বারাকপুর থানা উৎসব সমন্বয় কমিটির ব্যবস্হাপনায় বিচারকমন্ডলীর বিচারে মন্ডপ ও আলোকসজ্জায় প্রথম দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্হানাধিকারী হল বিদ্রোহী স্পোটিং ক্লাব, নবপল্লী এভারগ্রীন ক্লাব, শিবাজী সংঘ।

প্রতিমায় প্রথম পূর্বাঞ্চল সার্বজনীন দুর্গোৎসব সমিতি। দ্বিতীয় বিদ্রোহী স্পোটিং ক্লাব। তৃতীয় স্হান অধিকার করে ৫নং পার্ক সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি (ভাঙাগড়া )। ভাবনায় প্রথম সতীনসেন নগর সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি (মহাজাতি পরিষদ )। দ্বিতীয় শিবাজী সংঘ। তৃতীয় পূর্বাচল ক্লাব। সংস্কৃতি ও সচেতনতায় প্রথম যুগবেড়িয়া যুবক সংঘ। দ্বিতীয় শক্তি সংঘ। তৃতীয় পল্লী উন্নয়ন সংঘ (লেনিন সরণি ৭নং রেলগেট)। সামাজিক সচেতনতায় প্রথম দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্হান অধিকার করে যুগবেড়িয়া যুবক সংঘ, অভিযাত্রী সংঘ নব কামারগাতি কলোনী, সন্মেলনী ক্লাব। সাবেকিয়ানায় ঐতিহ্য প্রথম দক্ষিন মাসুন্দা পল্লীমঙ্গল সমিতি। দ্বিতীয় স্হানীয় অধিবাসীবৃন্দ ও নয়ের পল্লী যুবকবৃন্দ এন্ড পাঠাগার। তৃতীয় অফিস ব্লক সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি। সেরার সেরা বিদ্রোহী স্পোটিং ক্লাব, নবপল্লী এভারগ্রীন ক্লাব, সতীনসেনগর সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি (মহাজাতি পরিষদ )। মহিলা পরিচালিত সেরার সেরা খড়ের মাঠ মহিলা অধিবাসীবৃন্দ। শান্তনা পুরস্কারে নিউ বারাকপুর প্রগতি সংঘ ও চারের পল্লী সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি (যুবকবৃন্দ )। বিচারকলন্ডলীতে ছিলেন ঠাকুর শ্রী শ্রী সমীর ব্রহ্মচারী, প্রধান শিক্ষক ড. অনিরুদ্ধ বিশ্বাস, সাহিত্যিক কালিদাস ভদ্র, সঙ্গীতশিল্পী তানিয়া দাম, চিত্রশিল্পী ও ভাস্কর চৈতালি চন্দ দে, শ্যামল সিকদার, কবি ও সাংবাদিক শিখা দেব।

নিউ বারাকপুর থানার ওসি হিমাদ্রি ডোগরা জানান, এবছর নিউ বারাকপুরে ৫৯টি সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি থানার অনুমোদন পেয়েছে। বিচারকরা সপ্তমী ও অষ্টমীর দিন পুজো মন্ডপ গুলি পরিদর্শন করেছেন। নবমীতে শারদ সম্মান প্রাপক পুজো কমিটিগুলির নাম (ফলাফল ) ঘোষনা করা হয়। শান্তিপূর্ণ ভাবে পুজো শেষ হয়। বিসর্জন ঘাটে বিধি অনুযায়ী প্রতিমা নিরঞ্জন করা হয়েছে। এবছর নতুন চারটি সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি সংযোজন হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরে অথবা জানুয়ারিতে শারদ সম্মান প্রাপক পুজো কমিটিগুলিকে পুরস্কৃত করা হবে বলে জানিয়েছেন থানার ওসি হিমাদ্রি ডোগরা।