অলোক আচার্য, নিউবারাকপুর :- প্রবীণ নাগরিক। ষাট উদ্ধে বৃদ্ধ বৃদ্ধা। বয়সের ভারে বেশির ভাগ প্রবীণ প্রবীনারা ঘরে বসে। কেউ বাড়ির বাইরে বেরোতে পারেন না। আবার কেউ বা অসুস্থ।ঠিক ভাবে চলাফেরা করতে পারেননা।কারোর বা চিকিৎসা চলছে। বিছানায় শয্যাশায়ী। কেউ বা চাকুরি থেকে অবসর নিয়ে পেনশন ভোগী। সমাজে এইসব অসহায় বৃদ্ধ বৃদ্ধারা একটু চায় মানুষের আন্তরিকতা মানবিকতা। হেসে খেলে পরবর্তী জীবনযাপন উপভোগ। পরিবারে ছেলেমেয়ে থাকলেও সেই সব বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের মুখে নেই মৃদু হাসিঁ। অনাবিল আনন্দ। হালকা শীত পড়তেই তাদের একটু নতুন শীতবস্ত্র প্রয়োজন।

সেই তাগিদেই সেই সব অসহায় বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের কথা মাথায় রেখে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের মুখে হাসিঁ ফোটাতে তাদের হাতে তুলে দিল নতুন শীতবস্ত্র। শীতের শাল/চাদর। প্রবীণ প্রবীনারা বেজায় খুশী। বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় গোলাপ ফুল। ফুল কে না ভালোবাসে। নিউ বারাকপুর পুরসভার ৮নং ওয়ার্ড কমিটির উদ্যোগে রবিবার সকালে ও বিকালে জনতা রোড আচার্য জগদীশ বসু রোড নেতাজী সুভাষ রোড শরৎ চ্যাটার্জি রোডে প্রবীণ নাগরিকদের শীতবস্ত্র বিলি করে সন্মানিত করা হয়। ৮নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী ও সমর্থকেরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের শীতবস্ত্র ও গোলাপ ফুল দিয়ে সন্মানিত করেন। তাদের সুস্হ জীবন কামনা করেন। পাশে থাকবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন। বৃদ্ধ বৃদ্ধারা শীতবস্ত্র পেয়ে ওয়ার্ড কমিটির সদস্যদের বাহবা দেন। তারাও আশীর্বাদ দেন যুবক যুবতীদের। ওয়ার্ডের জনসংযোগের পাশাপাশি নবীন প্রবীণদের মেলবন্ধনে ভোট ব্যাঙ্ক শাসকদলের পক্ষে এগিয়ে গেলো বলে রাজনৈতিক নেতৃত্বরা মনে করেন। উল্লেখ্য গত ১ ডিসেম্বর শুরু হয়েছিল। সাত দিন ধরে চলছে এই শীতবস্ত্র বিলি ও প্রবীণ নাগরিকদের সংবর্ধনায়। প্রায় ৩০০ জনের উপর ষাট উদ্ধে বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের শীতবস্ত্র দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওর্য়াড কমিটির কর্তৃপক্ষ রা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × one =