নিউ বারাকপুরে দমদম তৃণমূল প্রার্থীর জোরকদমে প্রচার

0
Advertisement

অলোক আচার্য, নিউবারাকপুর :- সপ্তদশ লোকসভার দমদম কেন্দ্রের তৃণমূলের তৃতীয় বারের প্রার্থী অধ্যাপক সৌগত রায় প্রচার সারলেন দমদম উত্তর বিধানসভার নিউবারাকপুরে। রবিবাসরীয় সকালে এক বিরাট শোভাযাত্রা করলেন। শহরের তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি সুখেন মজুমদারের নেতৃত্বে। এদিন সকাল ৮টা নাগাদ বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সৌগত রায় নিউ বারাকপুর পুরসভার ৯, ১০, ১১, ১২, ১৯ ও ২০নং ওয়ার্ডে প্রচার সারেন। ওয়ার্ডের প্রতিটি কোনায় রাস্তার মোড়ে হুড খোলা গাড়ি নিয়ে পৌছে যান সাংসদ ও তার সমর্থনে জড়ো হওয়া ওয়ার্ডের প্রায় কয়েক হাজার কর্মী ও সমর্থকেরা। দুহাত করজোড়ে মানুষের কাছে ভোট প্রার্থনা করলেন সাংসদ। পুর এলাকার মানুষেরা কেউ বা প্রখর তীব্র দাবদাহে রাস্তায় এসে কেউ বা বাড়ির ছাদের উপর থেকে নমস্কার করে আশীর্বাদ করলেন পুনরায় নির্বাচিত করতে।

এদিন প্রচারে ঢাক ঢোলের পাশাপাশি অনবরত পুষ্পবৃষ্টি সঙ্গে ভবা পাগলার বাউল ও লোকসংগীত শিল্পীরা গান গেয়ে মানুষের মন জয় করলেন। এদিন প্রচারে প্রার্থীর সঙ্গে ছিলেন নিউ বারাকপুর শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সুখেন মজুমদার, পুরপ্রধান তৃপ্তি মজুমদার, পুরপিতা সৌমিত্র মজুমদার, প্রবীর সাহা, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ঋষীকেশ রায়, তৃণমৃল যুব কংগ্রেসের সভাপতি সুমন দে, তৃণমূল ছাএ পরিষদের সভাপতি ও পুরপিতা মনোজ সরকার সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধি ও কর্মী সমর্থকেরা মহিলারা। সুসজ্জিত বণার্ঢ্য শোভাযাত্রা পুরাতন বাজার, বঙ্কিম চ্যাটার্জি রোড, দক্ষিন মাসুন্দা, সতীনসেনগর মোড়, খড়ের মাঠ, লেনিন সরণি, পশ্চিম কোদালিয়া বিশরপাড়া স্টেশন সংলগ্ন এপিসি কলেজ রোড হয়ে ৭নং রেলগেটের অঙ্গনা উৎসব ভবনের সামনে মিছিল শেষ হয়। ২০নং ওয়ার্ডের পশ্চিম কোদালিয়া এক গৃহবধূ অধ্যাপক সৌগত রায়কে রজনীগন্ধার মালা পরিয়ে আশীর্বাদ করেন। উল্লেখ্য ২০১৪ সালে লোকসভায় সৌগত রায় নিউ বারাকপুর শহর থেকে প্রায় ৪৭০০ ভোটে মার্জিনে জিতেছিলেন। দমদম উত্তর বিধানসভায় শহর থেকে প্রায় ১২০০ ভোটে এগিয়ে ছিলেন তৃণমূল প্রার্থী। অধ্যাপক সৌগত রায় বলেন সাতটি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বাচনী প্রচারে নিউ বারাকপুর শহরে এসে খুব ভালো সাড়া পাচ্ছি। বিশেষ করে পুরসভা এলাকার উন্নয়নমূলক কাজে উপকৃত মানুষেরা এগিয়ে এসেছেন। নব বারাকপুরে সুখেন মজুমদারের নেতৃত্বে মিছিলে বিরাট লোক জমায়েত হয়েছে দেখে আমি অভিভূত। আশা করছি ভোটের এই কটা দিন দুবেলা কর্মী সমর্থকেরা লোকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সর্বশক্তি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রক্পগুলি বার্তা পৌছে দিন। কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন তাঁদের আন্তরিক অভিনন্দন জানাই। এ বারের নির্বাচনটা আলাদা,তার কারণ,মমতা এ বার সরাসরি মোদিকে চ্যালেজ্ঞ করেছে। শ্লোগান মোদি হটাও,দেশ বাঁচাও। যেটা ওঁকে গোটা দেশের কাছে একটা ভরসার জায়গায় দাঁড় করিয়েছে। আমি মনে করি, ৪২টা আসন পেয়ে এ বার তৃণমূল খুব গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় থাকবে লোকসভা গঠনে। বিজেপি মানে নোটবন্দি, বিজেপি মানে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি। কঠিন লড়াই টা মোদিকে হঠাবার লড়াই। লড়াইতে রুখে দাঁড়াতে হবে সকলকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 + twelve =