কেডিএস , বসিরহাট :- সর্বভারতীয় মানবাধিকার সচেতন সুরক্ষা সংগঠনের পক্ষ থেকে বসিরহাট মহকুমার হাড়োয়া এবং মিনাখাঁ ব্লকের বিভিন্ন পিছিয়ে পড়া আদিবাসী এবং প্রতন্ত গ্রাম মুন্সীঘেরি, দিহিগাছি, নজদেপুর, সোনারহুলা, গাবতলা, বাবুরহাট, দেবীতলা, বামনপুকুর, কুমারজোল, ঘোষপুর, ধুতুরদহ, কোকিলপুর, কেওড়াতলা, ঝালতলা, মল্লিকঘেরি, মালঞ্চ মটবাড়ি সহ বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে গিয়ে নাবালিকা কন্যা দের ১৮ বছরের আগে বিয়ে না করার অনুরোধ জানান তারা,, আরও জানান ওই নাবালিকা কন্যাদের পড়াশোনা যাতে চালিয়ে যেতে পারেন তার জন্য সমস্ত রকমের সাহায্য এবং মোবাইল নম্বর দেয়া হয়েছে।যেসব নাবালিকা বিয়ে দিচ্ছে গ্রামে ১৮ বছর নিচে দ্রুত সেখানে পৌঁছে গিয়ে যেসব সচেতন নাগরিক তাদেরকে বোঝানো এবং তার পরিবারকে বোঝানো। যাতে ১৮বছরের নিচে কোন সংখ্যালঘু পরিবারের মেয়েকে বিয়ে না দেয় এবং পড়াশোনা করে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে তারপরে নিজের সিদ্ধান্ত নিতে পারে।যার জন্য তাদের এই উদ্যোগ, বেশিরভাগ অংশ দেখা গিয়েছে সংখ্যালঘু পরিবারের নাবালিকার বিয়ে দেওয়াটা প্রবণতা অনেক বেশি। বেশি অংশে তাদেরকে সচেতন করা একরকম ভাবে গ্রামে গ্রামে গিয়ে প্রচারের লিফলেট ছড়ানো ও হেল্পলাইন চালু করা এই সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য।

শিক্ষা থেকে বঞ্চিত না হয় এই ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। করবে মানবাধিকার সংগঠন সমাজের বিভিন্ন মানুষ যাদের মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে তাদেরকে সঠিক বিচার পায়িয়ে দিতে একটি বিশেষ হেল্প লাইন চালু করা হয়েছে। সমাজের লান্চিত বঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাদের সমস্ত অধিকার ফিরিয়ে দিতে তারা অঙ্গীকার বদ্ধ। উপস্থিত ছিলেন সালাউদ্দিন মোল্লা সহ সম্পাদক উত্তর ২৪পরগনার জেলা মেকাইল মোল্লা, বসিরহাট ব্লক ২ সভাপতি মনু মুন্ডা, হাড়োয়া ব্লক কাউন্সিলিং সভাপতি সেখ নান্নুমিয়া, হাড়োয়া ব্লক সভাপতি মঙ্গল মণ্ডল, যুব সেল সভাপতি হাড়োয়া ব্লক আব্দুল জলিল মোল্লা, সম্পাদক হাড়োয়া ব্লক।