অলোক আচার্য, নববারাকপুরঃ- উদ্দেশ্য সকলের মুখে হাসি ফোঁটানো। পুজোর চার পাঁচ দিন সবাই হাসিখুশি ভাবে দিন কাটাবো। শারদীয়া উৎসবের প্রাক্কালে আর্থিক দিক দিয়ে পিছিয়ে পড়া সর্বস্তরের মানুষের মুখে একটু হাসি ফোঁটাতে প্রীতি বস্ত্র উপহার প্রদান করল নববারাকপুর পুরসভা।

মঙ্গলবার বিকেলে কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহের সামনে পুরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল অসহায় ছেলে মেয়ে থেকে আবাল বৃদ্ধ-বৃদ্ধাদের পাশে দাঁড়িয়ে তুলে দেওয়া হল শাড়ি লুঙ্গি ধুতি কুর্তা পাঞ্জাবি পায়জামা ছোট ছেলে মেয়েদের জামা প্যান্ট। স্বভাবতই খুশি নববারাকপুরবাসী। অসহায় গরীব মানুষেরা।

শারদীয়া উৎসবের প্রাক্কালে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং ব্যারাকপুর মহকুমা শাসকের সহযোগিতায় নববারাকপুর পুরসভার উদ্যোগে মঙ্গলবার বিকেলে প্রায় ১২০০ মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হল শারদীয়ার প্রীতি উপহার ও শুভেচ্ছা বিনিময় মিষ্টির প্যাকেট।

পুরসভার পুরপ্রধান প্রবীর সাহা বলেন, লক্ষ মানুষের মুখে হাসি ফোঁটানো। নতুন বস্ত্র প্রীতি উপহার তুলে দিয়ে। রাজ্যের অর্থমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং ব্যারাকপুর মহকুমা শাসক জেলাশাসকের সহযোগিতায় পুরসভার উদ্যোগে এই প্রীতি উপহার প্রদান আর্থিক দিক দিয়ে পিছিয়ে পড়া মানুষদের।বিরাট বড় প্রজেক্ট। ধন্যবাদ জানাই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তারপর ধন্যবাদ জানাই রাজ্যের অর্থমন্ত্রী ও বিধায়ক চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য এবং ব্যারাকপুর মহকুমা শাসকের। প্রীতি উপহার তুলে দিয়ে নিজেরা গৌরবান্বিত হলাম। শারদীয়া উৎসবের মঙ্গলময়ী মা সারা পৃথিবীর মানুষ কে ভালো রেখো। সকলের মঙ্গল করুন। সকলের সুস্থতা কামনা করি।

উপস্থিত ছিলেন পুরসভার উপ পুরপ্রধান স্বপ্না বিশ্বাস, পুর দলনেতা ডাঃ পংকজ কুমার অধিকারী, নববারাকপুর থানার ওসি বিজয় কুমার ঘোষ সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের পুর প্রতিনিধি ও পুর কর্মচারীরা।