অলোক আচার্য, নববারাকপুরঃ- মাইকেল মধুসূদন দত্ত উনিশ শতকের অন্যতম শ্রেষ্ঠ বাঙালি কবি ও নাট্যকার। বাংলার স্বনামধন্য কবি তিনি প্রথম বাংলা কবিতায় সনেট কবিতা লেখার মুকুট অর্জন করেন। বাংলা ভাষায় কবিতা ও কাব্যে বরেণ্যে কবির সবচেয়ে বিখ্যাত রচনা হল মেঘনাদবধ কাব্য। একজন নাট্যকার হিসেবেই মাইকেল মধুসূদন দত্ত বাংলা সাহিত্য জগতে পদার্পণ করেছিলেন। তার প্রথম মৌলিক নাটক শর্মিষ্ঠা বাংলায় নাট্য জগতে প্রথম মৌলিক নাটকের মর্যাদা পায়। বাংলার নবজাগরণ সাহিত্যের অন্যতম পুরোধা অমিত্রাক্ষর ছন্দের স্রষ্টা কবি ও নাট্যকার মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৮তম জন্মবার্ষিকী শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠান হল নববারাকপুর পুরসভার ৮নং ওয়ার্ডের সুসজ্জিত মাইকেল উদ্যানে মঙ্গলবার সকালে। মূর্তিতে মাল্যদান করে শ্রদ্ধা জানান পুরসভার মুখ্য প্রশাসক প্রবীর সাহা সহ বিশিষ্ট গুণীজনেরা।

উপস্থিত ছিলেন পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর সদস্য জয়গোপাল ভট্টাচার্য, স্থানীয় কোঅর্ডিনেটর ডাঃ পংকজ কুমার অধিকারী সহ এলাকার কবি লেখক নাট্যকার চিকিৎসক শিক্ষক ক্রীড়া সাংবাদিক সহ বিশিষ্ট গুণীজনেরা।

প্রশাসক বলেন, মাইকেল মধুসূদন দত্ত আমাদের কাছে অতীত। যত বেশি করে স্মরণ করবো তত আমাদের ভবিষ্যৎ বর্তমান ভালো থাকবে। ভালোভাবে এগিয়ে চলতে পারবো মহান মনীষীদের স্মরণ করে। বঙ্গ সন্তানদের ভাবনা চিন্তাধারাকে আমরা গর্ব অনুভব করি। বঙ্গ সন্তানরা এক একজন দিকপাল। আধুনিক জনমানসে সমাদৃত। তার স্রষ্টা জীবনধারা সম্পর্কে অনেকে অনেক কিছু ভাবেন। মরণে স্মরণে ভাবনা চিন্তা নিয়ে যত বেশি এগিয়ে যাব বাংলা বিশ্ব বাংলায় পরিনত হবে। মূর্তিতে মালা দিয়ে শ্রদ্ধাঞ্জাপন করে আমরা অনেক বেশি পূর্নতা প্রাপ্ত হলাম। তার সাহিত্য রচনার সম্মান জ্ঞাপন করা হল। নিজেরা ধন্য হলাম। নববারাকপুর বাসী ধন্য হল। আগামী দিনে মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মের দ্বিশতবার্ষিকী উদযাপন হবে নানাবিধ কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে।

উপস্থিত বিশিষ্ট জনেরা মালা ও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান মাইকেল মধুসূদন দত্তের মূর্তিতে। উপস্থিত ছিলেন নাট্য ব্যক্তিত্ব তপন দে, সুঅভিনেত্রী বন্দনা দত্ত, কলোনী উচ্চ বালক বিদ্যালয়ের সহ শিক্ষক সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়, ডাঃ অসিত চৌধুরী, ইন্ডিয়ান আর্ট কলেজের অধ্যক্ষ দেবাশিস মিত্র, কবি ও সাংবাদিক পূর্ণেন্দু চক্রবর্তী, শিখা দেব, কোঅপারেটিভ হোমস এর ডিরেক্টর অজয় রায়, প্রাক্তন পুর কর্মী অসীম মুখার্জী, শঙ্খ মুখোপাধ্যায়, অনুপ দাস, ৮নং ওয়ার্ডের কর্মী গোবিন্দ নাগ, আনন্দ কর্মকার, মহিলা কর্মী নমিতা দাস, গোপা বিশ্বাস প্রমুখ।

উল্লেখ্য গত বছর নববারাকপুর পুরসভার উদ্যোগে দেশবন্ধু ও মাইকেল মধুসূদন দত্ত নামাঙ্কিত উদ্যানের নবরুপে সুসজ্জিত আধুনিকিকরণ করে উদ্বোধন করা হয়েছিল।