অলোক আচার্য, নববারাকপুরঃ- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঐকান্তিক উদ্যোগে রাজ্যের পুরসভা গুলিতে চালু হয়েছে বিশেষ দুয়ারে সরকার পরিষেবা শিবির। নববারাকপুর পুরসভার উদ্যোগে সোমবার স্থানীয় শক্তি সংঘের গৃহে পুরসভার ১,২,১৪ ও ১৫নং ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের সুবিধার্থে প্রথম দিনে হল পঞ্চম পর্যায়ের দুয়ারে সরকার পরিষেবা শিবির। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিভিন্ন জনমুখি বাস্তবায়িত প্রকল্প গুলির সুবিধা আরো বেশি করে মানুষের দুয়ারে পৌঁছে দিতে এই শিবির।

আগামী ৩১জুলাই পর্যন্ত চলবে নববারাকপুর পুরসভার আটটি জায়গায় স্থায়ী শিবির। চারটি ক্লাব, দুটি লজ, কৃষ্টি অডিটোরিয়াম, ইনডোর স্টেডিয়াম এবং একটি মহাবিদ্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত চলবে দুয়ারে সরকার শিবির। স্বাস্থ্যসাথী, লক্ষ্মীর ভান্ডার, খাদ্যসাথী, কন্যাশ্রী, শিক্ষাশ্রী, রুপশ্রী, মানবিক, সমব্যাথি, সামাজিক সুরক্ষা যোজনা, জাতিগত শংসাপত্র, নতুন ব্যঙ্ক একাউন্ট খোলা, বার্ধক্য ও বিধবা ভাতা সহ ১১ টি সফল প্রকল্পের ফর্ম বিনামূল্যে পাওয়া যাবে শিবির থেকে। পূরণ করে জমা দিতে পারবেন এলাকার বাসিন্দারা। জানান পুরসভার ক্যাম্প ইনচার্জ দেবাশিস মুখোপাধ্যায়।

আগে ২১-৩০ জুন চতুর্থ পর্যায়ে দুয়ারে শিবির হয়েছিল বিভিন্ন বিদ্যালয়ে ও দুটি উচ্চ মহাবিদ্যালয়ে। মূলত মানুষের কাছে বিভিন্ন সরকারি উন্নত পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া সরকারের প্রধান লক্ষ্য। শিবির থেকে সকল প্রকল্প বা পরিষেবার ফর্ম বিনামূল্যে পাওয়া যায় এদিন জানান পুরসভার হেডক্লার্ক সজল নন্দী মজুমদার।

শক্তি সংঘের গৃহে উপভোক্তাদের প্রথম দিন উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। পুরসভার কর্মীরা বাসিন্দাদের পাশে দাঁড়িয়ে পরিষেবা প্রদানে সহায়তা করে এদিন। উপস্থিত ছিলেন পুরসভার পুরপ্রধান প্রবীর সাহা, কাউন্সিলর দেবাশিস মিত্র, নোডাল অফিসার দেব প্রসাদ রাহা, ডাঃ দেবতোষ দাস, পুলিশ প্রশাসন প্রমুখ নজরদারি করেন। ব্যারাকপুর মহকুমার তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের লোকশিল্পীরা আদিবাসী ঝুমুর নাচ পরিবেশন করে। বিভিন্ন ওয়ার্ডের উপভোক্তারা পরিষেবা পেয়ে বেজায় খুশি ।