নন্দনে সাংবাদিককে মেরে রক্তারক্তি যুবকের

0

প্রজ্ঞা পারমিতা দত্ত, কলকাতা :- কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচিত্র উৎসব মহা সমারোহে কয়েকদিন ধরে চলে আসছে এবং প্রায় শেষের মুখে এসে অকস্মাৎ এক দুর্ঘটনা নন্দনে।আচ্ছা যাদের জন্যে প্রত্যেকদিন সকালে আরাম কেদারায় বসে গরম গরম চায়ের পেয়ালা হাতে নিয়ে খবরের কাগজের পাতা ওল্টান, তারাই যদি আর না থাকে, অথবা টিভি খুলেই খবর না দেখতে পান? আজ্ঞে হ্যাঁ ঠিকই পড়েছেন। কারণ গতকাল ১৪ নভেম্বর নন্দনে দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ঘটে যাওয়া ঘটনা সত্যিই ঘৃণ্য। নন্দন ১ প্রেক্ষাগৃহ, সময় পাঁচ টা বেজে গেছে। ছবি শুরু হয়েছে সবে। হঠাৎই প্রেস মিডিয়ার জন্যে বরাদ্ধ করা আসনে বসে থাকা এববগ পাশে ব্যাগ দিয়ে দুজনের জায়গা রেখে দেওয়া এক ব্যক্তিকে ওই দুই সাংবাদিক ব্যাগ সরিয়ে নেওয়ার জন্য বলেন, এর উত্তরে আচমকাই ঘুসি খেয়ে যান এক সাংবাদিক তাকে বাঁচানোর উদ্যেশ্যে এগিয়ে এলে সেই সাংবাদিকদেরও উপর এলোপাথাড়ি আক্রমণ করে তাকে মেরে নাক ফাটিয়ে দেওয়া হয়।চোখের কোনায় ভেঙে ঢুকে যায় চশমার কাঁচ। ভীষণভাবে আঘাত বা চোখের উপরেও। এহেন অবস্থায় পুলিশকে জানান হলেও পুলিশ কোনো উদ্যোগ নিতে পারেন নি। ছবিটি শেষ হওয়ার পরে মিডিয়ার লোকেরা ঘিরে ধরেন ওই ব্যক্তিকে। সেই সময় ওনার স্ত্রী ছবি তুলতে যাওয়া সাংবাদিকদের কাজে বাধা দেন এবং ফোন কেড়ে নিতে তৎপর হন। এরপর পুলিশ যদিও ওই ব্যক্তিকে সুরক্ষা দিয়ে নিয়ে যায় এবং হাতাহাতিতে অংশগ্রহণ কই উভয় পক্ষকেই হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। ওই ব্যক্তির নাম জানা যায় রোহিতেশ্ব মুখার্জি যিনি সত্যজিৎ রায় ফিল্ম এবং টেলিভিশন ইনস্টিটিউটে এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর রূপে কর্মরত। এরপর যদিও হেস্টিংস থানায় উভয়পক্ষকে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচিত্র উৎসবের চেয়ারম্যান রাজ চক্রবর্তী পুরো বিষয়টাকে চাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন বলে সূত্রের খবর এবং নন্দন চত্বরে কর্মরত পুলিশরাও মিডিয়া কে তাদের কাজ করতে দেয়নি বলে জানা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

fourteen + 1 =