রাহুল রায়, পূর্ব বর্ধমান :- কথায় বলে যদি মনের মধ্যে জেদ ও সততা থাকে তা হলে যে কোন অসাধ্যই সাধন করা যায়, সেখানে কোন বাধায় হার মানাতে পারে না। তেমনী এক প্রকৃষ্ট উদাহরণ হল ছন্দা, রিতা ঘোষ। গতকাল উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল ঘোষিত হয়েছে, আর তাতে সফল ভাবে উত্তীর্ণ হয়েছে রিতা। পারিবারিক কঠিন দারিদ্রতা তার অদম্য ইচ্ছা শক্তির কাছে হার মানতে, বলা ভালো পরাজয় স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছে।

পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়া ২নং ব্লকের করুইগ্ৰাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত মেঝিয়ারী সতীশচন্দ্র স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয়ে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিল রীতা। বাড়ি পলসোনা গ্ৰামে। বাবা হারু ঘোষ বাড়িতে থেকে। মা রেভা ঘোষ গৃহবধূ। দিন আনা দিন খাওয়া পরিবারে রীতা ছিলো বাড়ির বড় মেয়ে এবং পড়া ছাড়াও টিউশনি পড়াতো, বাড়িতে সব কাজ করতে হতো তাকে। সব কিছু সামলে পড়া শোনার প্রতি বেশী সে দিতে পারতনা সময়। কিন্তু যতটুকু সময় পেতো ততটুকুই সে নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সহিত করত।

রীতার, পাড়া-পতিবেশীরা বলেন, পরিবার খুবই দুঃস্থ। কিন্তু ও খুব ভালো মেয়ে। পড়াশোনাতেও। সরকার যদি ছন্দার পড়ার ব্যাপারে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় তাহলে খুব ভালো হয়।রিতার প্রাপ্ত নম্বর ৩৯৩। বিভিন্ন বিষয়ে রীতার নম্বর হলো বাংলায় ৯২, ইংরেজিতে ৭৭, ইতিহাস ৮১, পুষ্টি ৭০, দর্শন ৭৩। বাবা হারু ঘোষ বলেন, দারিদ্রতা আমাদের নিত্যসঙ্গী। রীতা বাংলা-ইতিহাস অনার্স নিয়ে পড়তে চায়। কিন্তু আমার আর্থিক অবস্থা ভালো না, তাই মেয়ের ইচ্ছেকে সফল করা আমার পক্ষে খুব কঠিন। দিন আনা দিন খাওয়া পরিবারে রীতার পরিবারের তাই আবেদন, যদি সরকারি ভাবে কোন সাহায্য মেলে তাহালে তার মেয়ের স্বপ্ন পূরন হয়। পাশাপাশি কোন সুহৃদয় ব্যক্তি যদি ছন্দার পড়াশোনার জন্য বিশেষ ভাবে কোনো উপকার করে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন তাহলে খুবই উপকৃত ও কৃতজ্ঞ হই, এই আবেদন রীতার পরিবার ও তার প্রতিবেশী দের।

নীচে রীতার পরিবারের কন্টাক্ট নাম্বার দেওয়া রইল।
ফোন নং -8145936261

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 − 1 =