নিজস্ব প্রতিনিধি, ত্রিপুরাঃ- ত্রিপুরা রাজ্যে আগামী ২০২৩-এর বিধানসভা নির্বাচন বাকি আরও দেড় বছর। রাজ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ২০২৩ বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে ময়দানের সক্রিয় তারা। একের পর এক তৃণমূলের তাবড় তাবড় নেতা-নেত্রীরা রাজ্যে আসছেন। উদ্দেশ্য একটাই ত্রিপুরার মসনদে তৃণমূলের দখল। আর এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এক সভার মধ্য দিয়ে তেলিয়ামুড়া মহকুমার ২১২ পরিবারের ৯৫৭ জন ভোটার বিভিন্ন দল ত্যাগ করে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করে।

আজ এই যোগদান সভায় উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, পশ্চিমবঙ্গ পুর ও নগর উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, প্রাক্তন কংগ্রেসের সংসদ তথা বর্তমান সর্বভারতীয় তৃণমূল নেত্রী সুস্মিতা দেব, সর্বভারতীয় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সম্পাদিকা জয়া দত্ত সহ ত্রিপুরা রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব সুবল ভৌমিক সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা।

তেলিয়ামুড়া কালিটিলার সভায় নতুন প্রজন্মের কিছু যুবক সহ সিপিআই(এম), কংগ্রেস এবং রাজ্যের শাসক দল বিজেপি ত্যাগ করে ঘাসফুল শিবিরে যোগদান করে। তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় নেতৃত্বরা তাদের হাতে দলীয় পতাকা দিয়ে নিজ দলে বরণ করে নেন।

যোগদান সভায় পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় সভায় ভাষণ দিতে গিয়ে বলেন, ত্রিপুরার মাটিতে অরাজকতা চলছে। মিথ্যা মামলা দিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসকে আটকানো যাবে না। গোটা ত্রিপুরার দুয়ারে দুয়ারে শাসক দল দানব খাড়া করেছে, কিন্তু তৃণমূল বলছে ত্রিপুরায় সরকার তৈরি হবেই। বিপ্লব দেবের দুয়ারে দানব কর্মসূচির পরিবর্তে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশিত পথে ত্রিপুরার মাটিতে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি নিয়ে হাজির হবে।