বাইজিদ মন্ডল, ডায়মন্ড হারবারঃ- ডায়মন্ড হারবার পুলিশ জেলার স্থায়ী কার্যালয়ের নতুন ভবনের শুভ উদ্বোধন করেন সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জী। দীর্ঘদিন ধরে ডায়মন্ডহারবার জেলা পুলিশের কার্যালয় পরিচালিত হতো দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার পৈলান এস পি অফিস থেকে। কিন্তু দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা পুলিশের দাবি মেনে নতুন জেলা পুলিশের ভবন তৈরি করে, তার শুভ উদ্বোধন করেন সর্বভারতীয় তৃনমূলের সাধারণ সম্পাদক ও ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জী। এবং নতুন এস পি শ্রী ধীতৃমান সরকার আই পি এস এ ডি জি এবং ডি আই জি এবং এ এস পি রা এবং ডায়মন্ডহারবার জেলা পুলিশের বিভিন্ন সাবডিভিশনের এসডিপিও রা।

গত ২০১৪ সালে প্রথমবার ডায়মন্ড হারবার লোকসভা ভোটে দাঁড়িয়েই বাজিমাত করে ছিলেন তিনি। ২০১৯ সালে তৃণমূলের তথাকথিত খারাপ ফল বা অনেকের ভরাডুবির মধ্যেও নিজের আসনটি কে দখলে রেখেছিলেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কখনো যুব সভাপতি আবার কখনো দলের সর্বভারতীয় সম্পাদক নির্বাচিত। তবুও জনপ্রতিনিধি অভিষেক কিন্তু নিজের লোকসভা কেন্দ্র কে কখনোই অবহেলা করেননি। এমনিতে সারা বছর সাংসদের পক্ষ থেকে এলাকার বিভিন্ন গরীব দুঃস্থ মানুষদের বছরে কয়েক বার নতুন জামা কাপড় বিতরণ করা হয়, দুর্গা পূজার সময়,ঈদের সময়, এবং শীতকলে শীত বস্ত্র বিতরন করে থেকে। এছাড়াও বিগত লকডাউনের সময় সাংসদ এর এলাকায় দুঃস্থ মানুষদের সকল প্রকার সহযোগিতা করে নজির সৃষ্টি করে ছিলেন,এখনও পর্যন্ত তার সেই ধারাকে অব্যাহত রেখেছেন।

শনিবার ৩০ এপ্রিল ডায়মন্ড হারবার পুলিশ জেলার সেই কার্যালয় উদ্বোধন করলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক তথা ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন মগরাহাট পশ্চিমের বিধায়ক গিয়াস উদ্দিন মোল্লা, বিধায়ীকা নমিতা সাহা, জাহাঙ্গীর খান, শামীমা শেখ, দিলীপ মন্ডল সহ প্রশাসনিক অন্যান্য আরও বিশিষ্ঠ ব্যাক্তিবর্গ।

এই সভায় উপস্থিত হয়ে জেলা পুলিশের উদ্দেশ্যে বলেন, পুলিশ হল জনগণের বন্ধু তাই জনগণের কাজের মধ্যে দিয়ে তাদের সুনাম অর্জন করতে হবে। আগামী দিনে পশ্চিম বাংলার পুলিশ প্রশাসন দেশের কাছে আদর্শ হয়ে উঠবে এই কামনা করেন। জাতি ধর্ম ও রাজনৈতিক উদ্ধে গিয়ে কাজ করতে হবে পুলিশ প্রশাসন কে। তাই আগামী দিনে ডায়মন্ডহারবার জেলা পুলিশের সাফল্য কামনা করেন।